এডিস মশা নিধনে আগামী ৮ জুলাই থেকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) এলাকায় টানা একমাস ক্রাশ প্রোগ্রাম চালানো হবে বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা। বুধবার (৫ জুলাই) বেলা ১১টায় মোহাম্মদপুরে ড্রোনের সাহায্যে ছাদ বাগানে মশার প্রজননস্থল চিহ্নিতকরণের লক্ষ্যে সার্ভে কার্যক্রম শুরুর সময় একথা জানান তিনি।

সেলিম রেজা বলেন, এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে সারা বছরই বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে ডিএনসিসি। এখন বর্ষা মৌসুমে এডিস মশার উপদ্রব বেড়েছে। এডিস মশা নিধনে ড্রোনের মাধ্যমে বাসাবাড়ির ছাদে পানি জমে আছে কি না বা জমে থাকা পানি মশার প্রজনন আছে কি না তা সার্ভে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আগামী চার দিনের মধ্যে পৃথক পাঁচটি ড্রোনের মাধ্যমে নগরের বাসা বাড়িগুলো সার্ভে করা হবে।

তিনি বলেন, শহরে একটি বাড়ির ছাদের সঙ্গে আরেকটি ছাদ লেগে আছে। সার্ভে করার জন্য প্রত্যেক ছাদে হেঁটে হেঁটে যাওয়ার সম্ভাব নয়। এখন এক জায়গায় দাঁড়িয়ে একটি ড্রোনের মাধ্যমে প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকার ছাদ সার্ভে করা যায়। এভাবে পাঁচটি ড্রোনের মাধ্যমে নগরের প্রত্যেকটি এলাকার বাড়ির ছাদ সার্ভে করা হবে। আরে সার্ভে কার্যক্রম পরিচালনার সঙ্গে ভ্রাম্যমাণ আদালতও থাকবে। যে বাড়ির ছাদে মশার লার্ভা পাওয়া যাবে তাৎক্ষণিক তাদের জরিমানা করা হবে।

প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, এডিস মশা স্বচ্ছ পানিতে জন্মায়। তাই বাসা বাড়িতে কোনো পাত্রে পানি জমতে দেওয়া যাবে না। ডেঙ্গু থেকে বাঁচতে প্রত্যেককে নিজ নিজ আঙ্গিনা পরিষ্কার রাখতে হবে। এসময় ডিএনসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম শফিকুর রহমানসহ স্থানীয় কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।