দাঁত তুলতে চোখের সমস্যা হতে পারে এমন ধারণা কমবেশি সবার মধ্যেই আছে। তবে নানা কারণে একজন রোগীর দাঁত তুলে ফেলে দিতে হয়। তাই রোগীরা উদ্বিগ্ন থাকেন ও সঙ্গত কারণেই এ ধরনের প্রশ্ন করে বসেন দন্তবিদকে। বিশেষ করে এই দাঁত যদি হয় উপরের মাড়ির তাহলে তো রোগীর দুশ্চিন্তা আরও বেড়ে যায়।

তবে দাঁত তুললে চোখের কোনো সমস্যা হয় না। বিভিন্ন কারণেই দাঁত ফেলে দিতে হয়, তার মধ্যে দাঁত-মাড়ির প্রদাহ অন্যতম। উপরের মাড়ির দাঁতে যদি এই প্রদাহ হয়, তাহলে ব্যথাটি অতি দ্রুত চোখের দিকে ছড়িয়ে পড়ে।

শুধু যে চোখে পড়ে এমনটিও না, এর ব্যথা অনুভব হতে পারে মাথা ও কানেও। যাকে আমরা রেফার পেইন বলি। অনেক সময় রেফার পেইন হলে এই ব্যথা অনুভব হতেই পারে।

রেফার পেইন কী? দাঁতের ব্যথা যদি কানে, মাথায় বা চোখে অনুভব করেন তাহলে তা হতে পারে রেফার পেইন। এক্ষেত্রে দাঁতের নার্ভের সঙ্গে চোখের নার্ভ বা কানের নার্ভের কোনো যোগাযোগ নেই।

তাই দাঁত তুলে ফেললে চোখের বা কানের কোনো ক্ষতি হয় না এমনকি চোখের পাওয়ারও কমে যাওয়ার কোনো ঝুঁকি নেই। যেহেতু দাঁত ও চোখ দুটির আলাদা স্নায়ুতন্ত্র বা নার্ভ বিদ্যমান। সেহেতু এদের স্নায়ুপ্রবাহ ও রক্তপ্রবাহ দুটিই আলাদা।

মনে রাখতে হবে, চোখের স্নায়ুপ্রবাহ হচ্ছে অপথালমিক ডিভিশন অব ট্রাইজেমিনাল নার্ভ ও নিচের দিকে হচ্ছে ম্যাক্সিলারি ডিভিশন অব ট্রাইজেমিনাল নার্ভ। রক্ত প্রবাহিত হয় অপথালমিক ও ল্যাক্রিমাল আর্টারি দ্বারা।

অন্যদিকে নিচের পাটির দাঁতে স্নায়ুপ্রবাহ দেওয়া হলো, ইনফিরিয়র অ্যালভিওলার নার্ভ ব্রাঞ্চ অব ম্যান্ডিবুলার নার্ভ। আর উপরের পাটির দাঁতে স্নায়ুপ্রবাহ দেয় অ্যান্টিরিয়র, পোস্টিরিয়র, মিডল সুপিরিয়র নার্ভ। তাই চিকিৎসার প্রয়োজনে দাঁত তুললে চোখের সমস্যা হয় এমনটি ভাবার কোনো সুযোগ নেই।

তবে মনে রাখা জরুরি, আপনার যদি ব্লাড প্রেশার, ডায়াবেটিস, প্রেগনেন্সি, কিডনিজনিত সমস্যা কিংবা শ্বাসকষ্টসহ জটিল কোনো সমস্যা থাকে, তাহলে ডেন্টিস্টকে অবহিত করুন। না হলে বিপদে পড়তে পারেন।