হলিউডের তথা সারাবিশ্বের জনপ্রিয় অ্যাকশন হিরো ব্র্যাড পিট সম্প্রতি তার লস এঞ্জেলসের ফেলিজ ম্যানশন বাড়িটি বিক্রি করেছেন। যে বাড়িটিতে তিনি ৩০ বছর ধরে বসবাস করছিলেন। এই বাড়িটিতেই তিনি তার সাবেক স্ত্রী এঞ্জেলিনা জোলি ও তার সন্তানদের নিয়ে একসঙ্গে বসবাস করতেন।

৫৯ বছর বয়সী ব্যাবিলন তারকা ব্র্যাড পিট ১.৯ একর জমির উপরে অবস্থিত তার অ্যাপার্টমেন্টস, সুইমিং পুল, টেনিস কোর্ট এবং স্কেটিং রিঙ্কসহ অন্যান্য অন্যান্য স্থাপনা বিক্রির জন্য অনেকদিন ধরেই চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন।

কিন্তু মন মতো কোনো গ্রাহক পাচ্ছিলেন না, অনেকদিন চেষ্টার ফলে তিনি একটি রিয়েল এস্টেট কোম্পানির কাছে তার লস এঞ্জেলসের এই সম্পদ ৪০ মিলিয়ন ডলারে বিক্রি করে দিয়েছেন, যা বাংলাদেশি টাকায় হিসেব করলে ৪০০ কোটিরও বেশি হয়। এ খবরটি ব্র্যাড পিটের ক্রয়কৃত রিয়েল এস্টেট কোম্পানি পিপলস ম্যাগাজিনকে নিশ্চিত করেছে।

অস্কার বিজয়ী এই অভিনেতা এ সম্পত্তি ১৯৯৪ সালে ১.৭ মিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে এলভিরা, মিস্ট্রেস অফ দ্য ডার্ক স্টার ক্যাসান্দ্রা পিটারসনের কাছ থেকে কিনেছিলেন।

ব্র্যাড পিট এবং তার সাবেক স্ত্রী এঞ্জেলিনা জোলি, তাদের ছয় সন্তান- ম্যাডক্স (২১), প্যাক্স (১৯), জাহারা (১৮), শিলো (১৬), ১৪ বছর বয়সী যমজ নক্স এবং ভিভিয়েন ২০১৬ সাল পর্যন্ত লস এঞ্জেলসের এ বাড়িতে থেকেই বড় হয়েছেন। ওই বছরই ব্র্যাড পিটের সঙ্গে এঞ্জেলিনা জোলির বিবাহ বিচ্ছেদ হলে তারা সবাই ঐ বাড়ি থেকে চলে যান।

ব্র্যাড পিট এবং অ্যাঞ্জেলিনা জোলির বিচ্ছেদের পর তাদের সন্তানদের হেফাজত এবং সম্পত্তি নিয়ে দুজনের মধ্যে আইনি প্রক্রিয়া এখনো চলমান। ব্র্যাড পিট উক্ত সম্পত্তি বিক্রি করেছেন কারণ তিনি লস এঞ্জেলসে ছোট কিছু খুঁজছেন যেখানে তিনি ছোট পরিসরেই থাকতে চান। এই অভিনেতার লস এঞ্জেলস ছাড়াও হলিউড, ফ্রান্সসহ অন্যান্য জায়গায় একাধিক সম্পত্তি রয়েছে যার বর্তমান বাজার মূল্য আকাশচুম্বি।

হলিউডের একসময়কার বিখ্যাত জুটি ছিলেন ব্র্যাড পিট ও অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। এই তারকা দম্পতিকে পাওয়ার কাপল বললেও ভুল হতো না তখন! দুজনেই সিনেমাপ্রেমীদের উপহার দিয়েছেন অসাধারণ সব ছবি। স্বামী-স্ত্রী থাকাকালীন একসঙ্গে ক্যামেরাবন্দী হয়েছেন অসংখ্য অনুষ্ঠানে।