ডায়াবেটিসকে বলা হয় নীরব ঘাতক। কারণ রক্তে শর্করা কখন বাড়তে শুরু করে, রোগী তা একেবারেই টের পান না।

ডায়াবেটিস বেড়ে গেলেই এর লক্ষণ দেখা দিতে শুরু করে। যার কারণে শুরুতে এটি নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হয়ে পড়ে। সেজন্য ডায়াবেটিস সম্পর্কে পূর্ণ সচেতনতা থাকতে হবে।

আরও পড়ুন: পিত্তনালির ক্যানসারে ভুগছেন কি না বুঝবেন যে লক্ষণে

সিডিসি অনুযায়ী, ডায়াবেটিস হলে ঘন ঘন প্রস্রাব, অতিরিক্ত তৃষ্ণা, কোনো কারণ ছাড়াই ওজন কমে যাওয়া, অতিরিক্ত ক্ষুধামন্দা, হাত-পা অবশ হয়ে যাওয়া, অতিরিক্ত ক্লান্তি, শুষ্ক ত্বক, ত্বকে ইনফেকশনের মতো লক্ষণ দেখা দিতে শুরু করে।

ডায়াবেটিসের শেষ লক্ষণ কখন দেখা যায়?

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে না থাকলে স্নায়ু নষ্ট করে দেয়। যার কারণে চোখ, পা, হার্ট, কিডনি, স্নায়ুর মতো অন্যান্য অঙ্গও ক্ষতিগ্রস্ত হতে শুরু করে ও এটিই এই রোগের শেষ পর্যায়। একই সময়ে আপনি এর শেষ লক্ষণগুলো দেখতে পাবেন।

আরও পড়ুন: ফ্যাটি লিভার নিয়ন্ত্রণে আনুন রান্নাঘরের এক উপাদানেই

চোখের ক্ষতির লক্ষণ

এনএইচএসের মতে উচ্চ চিনির কারণে চোখের ক্ষতিকে ডায়াবেটিক রেটিনোপ্যাথি বলা হয়। এতে চোখের আলো ধীরে ধীরে কমতে থাকে বা ঝাপসা হতে থাকে। একই সময়ে, আপনার চোখের সামনে বিভিন্ন আকার উপস্থিত হতে শুরু করে।

হার্টের ক্ষতির লক্ষণ

>> শ্বাসকষ্ট
>> ক্লান্তি
>> মাথা ঘোরা
>> অস্বাভাবিক হৃদস্পন্দন
>> পা ও গোড়ালি ফোলা
>> বুক ব্যাথা

আরও পড়ুন: মুখে যে লক্ষণ দেখলে ধূমপায়ীরা সতর্ক হবেন

কিডনি নষ্ট হওয়ার লক্ষণ

>> উচ্চ রক্তচাপ
>> প্রস্রাবে প্রোটিন বেড়ে যাওয়া
>> পা, গোড়ালি, হাত ও চোখ ফুলে যাওয়া
>> ঘন মূত্রত্যাগ
>> ক্ষুধামন্দা
>> বমি বমি ভাব বা বমি
>> ক্রমাগত চুলকানি