সাত দশমিক আট মাত্রার ভয়াবহ ভূমিকম্পে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চল। দেশটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ৩৮৮ জন। তাছাড়া আহত হয়েছেন ৭৭ হাজার ৭১১ জন। এমন পরিস্থিতিতে দেশটিতে বেড়েছে আর্তনাদ। খবর আল-জাজিরার।

হতাহতের সংখ্যা জানাতে গিয়ে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বলেন, সরকার ভূমিকম্প-বিধ্বস্ত অঞ্চলের মানুষদের স্থানান্তর ও ভাড়া সহায়তা দেবে।

আরও পড়ুন>ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা ২২ হাজার ছাড়ালো

এদিকে সিরিয়া ও তুরস্কে একত্রে মৃতের সংখ্যা ২২ হাজার ছাড়িয়েছে। ঘটনার চারদিন পরও ধ্বংসস্তূপে চাপা পড়া লোকজনকে উদ্ধারে প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে উদ্ধারকারীরা।

ভূমিকম্পের ১০০ ঘণ্টা পর ধ্বংসস্তূপে আটকে পড়া একই পরিবারের ছয়জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার কর্মীরা তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চলের ইস্কেন্ডারানে ধসে পড়া একটি ভবন থেকে তাদের উদ্ধার করে।

জীবিত উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিরা ধসে পড়া কাঠামোর মধ্যে ছোট এক জায়গায় একসঙ্গে আবদ্ধ ছিল। মুরাত বায়গুল নামের এক উদ্ধারকর্মী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন>এবার ১০০ ঘণ্টা পর ৬ জনকে জীবিত উদ্ধার

তাছাড়া ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত তুরস্কে ২২ মেট্রিক টন ত্রাণ সহায়তা পাঠিয়েছে পাকিস্তান। একটি কার্গো প্লেনে এসব ত্রাণ পাঠানো হয়। এখনো তুরস্কজুড়ে পরিচালনা করা হচ্ছে উদ্ধার অভিযান। জীবিত উদ্ধার করা হচ্ছে অনেককে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ জানিয়েছেন, তুরস্কে ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের জন্য ২০ মেট্রিক টন ত্রাণ সহায়তা পাঠানো হলো। আকাশ, ভূমি ও সমুদ্র তিন পথেই তুরস্কের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে পাকিস্তানের।