শরীরের অতিরিক্ত মেদ ঝরাতে কেউ করেন কঠোর শরীরচর্চা আবার কেউ করেন ডায়েট। তবে ওজন কমাতে গেলে অবশ্যই সঠিক জীবনযাপন করা জরুরি। অতিরিক্ত শরীরচর্চা কিংবা ডায়েট কোনোটিই শরীরের জন্য ভালো নয়। তাই স্বাস্থ্যকর খাবারের পাশাপাশি দিনের কিছুটা সময় হালকা শরীরচর্চা করার বিকল্প নেই।

তবে কর্মব্যস্ত জীবনে অনেকেই শরীরচর্চা করার সময় পান না। তারা চাইলে বিছানায় শুয়ে শুয়েই কয়েকটি ব্যায়াম করতে পারেন। এতে শরীরের অতিরিক্ত মেদও ঝরবে আবার সময়ও বাঁচবে। ঘুম থেকে উঠে কিংবা রাতে ঘুমানোর আগেও ব্যায়ামগুলো শুয়ে শুয়ে করতে পারেন সহজেই।

পা ও উরুর জন্য

এই ব্যায়াম করতে হাঁটুতে ভর করে বসুন। তারপর পেছনের একটি পা উঁচু করে নিতম্বের কাছে নেওয়ার চেষ্টা করুন। অন্যদিকে মাথা পেছনে হেলিয়ে রাখুন। যে পা পেছনে উঁচু করেছেন সেদিকে হাত মাটিতে স্পর্শ করুন ও অন্য হাটি উপরে তুলে ধরুন। এই প্রক্রিয়াটি কিছুক্ষণ করুন। প্রতিটি পায়ে ১০ বার করুন। আপনি চাইলে সময় আরও বাড়াতে পারেন।

হিপসের জন্য

প্রথমে হাঁটুতে ভর দিয়ে বসে, এক পা ভাঁজ করা অবস্থায় সামনে ছড়িয়ে দিন। আর অন্য পা পেছনে একইভাবে ছড়িয়ে বসুন। দু’হাত দু’পাশে মাটিতে ভর দিয়ে রাখুন। এভাবে কিছুক্ষণ বসে থাকুন। এই ব্যায়ামের মাধ্যমে আপনার নিতম্বের অতিরিক্ত মেদ সহজেই ঝরাতে পারবেন।

গোড়ালির জন্য

যাদের গোড়ালিতে প্রচুর চর্বি জমে আছে, তারা এই ব্যায়াম করতে সোজা হয়ে শুয়ে পড়ুন তারপর পায়ের গোড়ালি সামনের দিকে প্রসারিত করুন। এভাবে কয়েক মিনিট ধরে রাখুন।

কোমরের জন্য

সারাদি বসে যারা কাজ করেন তাদের কোমরের চারপাশের চর্বি বেড়ে যায়। এমন মেদ ঝরাতে একটি ব্যায়াম নিয়মিত করুন। সোজা হয়ে শুয়ে, পা দুটি ভাঁ করে নিন ও দু’হাত দুদিকে ছড়িয়ে দিন। তারপর পা ভাঁ করা অবস্থাতেই একবার ডানদিকে আবর বামদিকে করুন। এই ব্যায়াম খুবই কার্যকরী।

পেটের জন্য

পেটের মেদ সহজে ঝরতে চায় না। এ নিয়ে কমবেশি সবাই ভোগেন। পেটের মেদ ঝরাতে সোজা হয়ে শুয়ে পরুন। তারপর পা সোজা করে প্রথমে ৬০ ডিগ্রি ও পরে ৯০ ডিগ্রিতে উঁচু করুন। যতক্ষণ সম্ভব সেভাবে ধরে রাখুন পা। বেশ কয়েকবার ব্যায়ামটি পুনরাবৃত্তি করুন।

কাঁধের জন্য

কাধেঁর আকৃতি সুন্দর করতে এই ব্যায়ামটি নিয়মিত করতে পারেন। এজন্য প্রথমে শুয়ে পড়ুন। তারপর হাত একবার উপরে তুলুন আবার নামিয়ে আনুন। বেশ কয়েকবার এই ব্যায়াম করুন।

পুরো শরীরের ব্যায়াম

বিছানায় শুয়ে ব্যায়াম করার পর নেমে এক জায়গায় দাঁড়িয়ে কিছুক্ষণ হাঁটুন। এতে পুরো শরীরের রক্ত সঞ্চালন বাড়বে। এক জায়গায় দাঁড়িয়ে হাঁটার মাধ্যমে আপনার পুরো শরীরের মেদ ঝরাতে পারবেন। তবে যে ব্যায়ামই করুন না কেন, ধৈর্য সহকারে নিয়মিত অনুশীলন করতে হবে। না হলে লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবেন না।

মনে রাখবেন, ব্যায়াম করার সময় সঠিকভাবে শ্বাস নিতে ভুলবেন না ও আপনার পিঠ সোজা রাখুন। আর যে কোনো ব্যায়াম করার আগে কিছুক্ষণ ওয়ার্ম আপ করা জরুরি।