নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখে চিকিৎসার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সিসিইউতে নেয়া হয়েছে। রোববার দুপুরে খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এ জেড এম জাহিদ হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, “ম্যাডাম এখন সিসিইউতে আছেন। সেখানেই তার শারীরিক পরীক্ষা চলছে। বিকালে মেডিকেল বোর্ডের বৈঠক রয়েছে। সেখানে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ও পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে পর্যালোচনা করা হবে।”

এর আগে শনিবার বিএনপি নেত্রী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে তার গুলশানের বাসা ফিরোজা থেকে বসুন্ধরার এভারকেয়ার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। শুক্রবার রাত থেকে অসুস্থ বোধ করায় তাকে হাসপাতালে ভর্তির সিদ্ধান্ত হয়। প্রথমে কেবিনে রাখা হলেও রোববার তাকে নেওয়া হয় সিসিইউতে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডাক্তার শাহাবুদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে একটি মেডিকেল বোর্ডের তত্ত্বাবধানে আছেন তিনি।

৭৬ বছর বয়সী খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, ফুসফুস, চোখের সমস্যাসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন। করোনায় আক্রান্তের পর এনিয়ে তৃতীয় দফা হাসপাতালে ভর্তি হলেন খালেদা জিয়া।

গত ১২ এপ্রিল করোনাভাইরাসেও আক্রান্ত হন তিনি। নানা শারীরিক জটিলতায় গত ২৭ এপ্রিল তাকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেই সময় টানা ৫৩ দিন হাসপাতালে ছিলেন খালেদা জিয়া।

সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতির মামলায় দণ্ড নিয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যান। দেশে করোনাভাইরাস মহামারী শুরুর পর পরিবারের আবেদনে গত বছরের ২৫ মার্চ ‘মানবিক বিবেচনায়’ তাকে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি দেয় সরকার। তখন থেকে খালেদা জিয়া গুলশানের বাড়ি ফিরোজায় রয়েছেন।