চট্টগ্রামের বাঁশখালীর নির্মাণাধীন বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিক বিক্ষোভে নিহত শ্রমিকের প্রত্যেকে দুই লাখ করে টাকা পাবে বলে জানিয়েছেন, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান। এছাড়া আহত শ্রমিকদের প্রত্যেকের চিকিৎসার জন্য ৫০ হাজার টাকা করে সহায়তা দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

সোমবার (২৬ এপ্রিল) দুপুরে এক বিবৃতিতে এ সহায়তার কথা জানান তিনি।

তিনি জানান, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীন বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন তহবিল থেকে এ সহায়তা দেওয়া হবে।

বাঁশখালীর ঘটনা অত্যন্ত মর্মান্তিক এবং বেদনাদায়ক উল্লেখ করে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বলেন, একটি শ্রমজীবী পরিবারের কর্মক্ষম ব্যক্তিটির মৃত্যু হলে সে পরিবারটি অসহায় হয়ে পড়ে। সে অসহায় শ্রমিক পরিবারকে শ্রম মন্ত্রণালয়ের শ্রমিক কল্যাণ তহবিল থেকে সহযোগিতার সুযোগ রয়েছে।

এসময় নিহত শ্রমিকদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন তিনি। সেই সাথে যাঁরা আহত হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন, তাঁদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৭ এপ্রিল চট্টগ্রামের বাঁশখালীর কয়লাবিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিকদের ১১ দাবিতে বিক্ষোভ চলাকালে পুলিশের গুলিতে পাঁচ শ্রমিক নিহত এবং ৩২ আহত হন।

সেদিনের ঘটনায় নিহতরা হলেন- কিশোরগঞ্জের ফারুক আহমদের ছেলে মাহমুদ হাসান রাহাত (২২), চুয়াডাঙ্গার অলি উল্লাহর ছেলে মো. রনি হোসেন (২৩), নোয়াখালীর আব্দুল মতিনের ছেলে মো. রায়হান (১৯), চাঁদপুরের মো. নজরুলের ছেলে মো. শুভ (২২) এবং বাঁশখালীর পূর্ব বড়ঘোনার মওলানা আবু ছিদ্দিকীর ছেলে মাহমুদ রেজা (১৯)।

এরপর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান গুলিতে আহত আরও দুই শ্রমিক। এরা হলেন দিনাজপুরের ফুলবাড়িয়া উপজেলার আব্দুল মান্নানের ছেলে রাজিউল ইসলাম (২৫) এবং মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার আব্দুল মালেকের ছেলে শিমুল আহমেদ (২৩)।