হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ওয়ার্ডের দরজা ভেঙে বীরেশ দাশ (৬৫) নামে এক মুক্তিযোদ্ধার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার (১৭ মার্চ) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে রক্তাক্ত অবস্থায় এ মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত বীরেশ দাশ শহরের শ্যামলী এলাকার বাসিন্দা ও বানিয়াচং উপজেলার নজিরপুর গ্রামের মৃত্যু মহেশ দাশের ছেলে।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, বীরেশ দাশ গত ১ মার্চ কিডনি জটিলতাসহ বিভিন্ন রোগে সদর হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। মঙ্গলবার রাতে বীরেশ দাশের পরিবার তাকে একা রেখে বাসায় চলে যান। সকালে তার ছেলে বিজয় দাশ এসে দেখতে পান তার দরজা বন্ধ পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষসহ পুলিশ দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে রক্তাক্ত অবস্থায় তার মৃতদেহ উদ্ধার করে।

নিহত মুক্তিযোদ্ধার ছেলে বিজয় দাশ বলেন, মার্চের ১ তারিখ বাবাকে সদর হাসপাতালে কিডনি সমস্যা নিয়ে ভর্তি করি। মঙ্গলবার রাতে তাকে মুক্তিযোদ্ধা ওয়ার্ডে রেখে বাসা চলে যাই সকালে এসে দেখি ওয়ার্ডের কক্ষ বন্ধ পরে বিষয়টি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অবহিত করি পরে দরজা ভেঙ্গে দেখি বেডের নিচে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক হেলাল উদ্দিন বলেন, মুক্তিযোদ্ধা বীরেশ দাশ ১ মার্চ তিনি কিডনিজটিলতাসহ বেশ কয়েকটি রোগ নিয়ে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার সকালে তার ছেলে এসে দেখতে পান তার দরজা বন্ধ পরে ডাকাডাকি করার পরেও কোনও সাড়া না পেয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলে পরে পুলিশ নিয়ে তার দরজা ভেঙে দেখতে পাই বেডের নিচে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে আছে।

হবিগঞ্জ সদর থানার এস আই সাইদুর রহমান বলেন, বীরেশ দাশ কয়েকদিন ধরে কিডনি সমস্যায় সদর হাসপাতালে ভর্তি ছিল। মঙ্গলবার রাতে তাকে রুমে একা রেখে পরিবার বাসায় চলে যান। সকালে তার ছেলে বিজয় দাশ এসে দেখতে পান তার দরজা বন্ধ পরে বিষয়টি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষসহ পুলিশ এসে দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে রক্তাক্ত অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।