সবার চোখ যখন খুঁজে বেড়াচ্ছিল সাকিব আল হাসানকে, তখন নড়েচড়ে বসার আগেই দিনের প্রথম উইকেট তুলে নেন তাইজুল ইসলাম। আগেরদিন সাবলীল ব্যাটিং করা এনক্রুমাহ বোনারকে স্লিপে দাঁড়ানো নাজমুল হোসেন শান্তর হাতে ক্যাচে পরিণত করেন তাইজুল ইসলাম। দিনের শুরুতেই আনন্দে ভাসে বাংলাদেশ দল।

সেই ওভারের চতুর্থ বলে কাইল মায়ারসের ব্যাটের কানায় লেগে সুযোগ আসে উইকেটরক্ষক লিটন দাসের কাছে। কিন্তু সেটি গ্লাভসবন্দী করতে পারেননি লিটন। তার কনুইয়ে লেগে বল চলে যায় স্লিপে দাঁড়ানো শান্তর কাছ দিয়ে। শুক্রবার ম্যাচের তৃতীয় দিনের প্রথম সেশনের পুরো চিত্রটাই যেন ফুঁটে ওঠে প্রথম ওভারের এই দুই বলে।

কেননা পুরো সেশনে বাংলাদেশ দল তিন উইকেট যেমন নিয়েছে, তেমনি অন্তত গোটা দুয়েক উইকেটের সুযোগও হাতছাড়া করেছে। তাইজুলের বলে লিটন দাসের ক্যাচ ছাড়ার পর নাঈম হাসানের বলে একটি রিভিউ নেয়নি বাংলাদেশ। এছাড়া ক্লোজ ইন ফিল্ড তথা শর্ট লেগ ও সিলি পয়েন্টেও ওঠে বেশ কিছু ক্যাচ। কিন্তু সেগুলো কাজে লাগাতে পারেনি টাইগাররা। ফলে প্রথম সেশনে আসেনি তিন উইকেটের বেশি।

আগেরদিনে করা ২ উইকেটে ৭৫ রান নিয়ে আজ খেলা শুরু করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথম সেশনে ৩৩ ওভার খেলে তারা ৩ উইকেট হারালেও, স্কোরবোর্ডে যোগ করেছে ১১৪ রান। বাংলাদেশের করা ৪৩০ রানের চেয়ে তারা পিছিয়ে রয়েছে ২৪১ রানে, হাতে রয়েছে পাঁচ উইকেট। দ্বিতীয় সেশনে খেলতে নামবেন দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান জার্মেইন ব্ল্যাকউড ও জশুয়া ডা সিলভা।

কুঁচকির চোটের কারণে মাঠে নামেননি সাকিব আল হাসান। তাকে ছাড়াই পুরো সেশন খেলেছে বাংলাদেশ দল। তাইজুলের প্রথম বলেই পাওয়া উইকেট দিয়ে শুরু হয় সেশন। আগেরদিনে করা ১৭ রানেই আউট হন বোনার। পরে ক্যারিবীয় অধিনায়ক ক্রেইগ ব্রাথওয়েটকে দারুণ এক টার্নিং ডেলিভারিতে বোকা বানান নাইম। এর আগেই ব্যক্তিগত ফিফটি তুলে নেন ব্রাথওয়েট, আউট হওয়ার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ১১১ বলে ৭৬ রান।

প্রথম সেশনের প্রথম বলে উইকেট হারালেও, ৩৩ ওভারে যে ১১৪ রান করতে পেরেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, এর বড় কৃতিত্ব পাবেন অভিষিক্ত কাইল মায়ারস। চাপের মুখে ব্যাট করতে নেমে পাল্টা আক্রমণে রানের চাকা সচল রাখেন তিনি। মোস্তাফিজুর রহমানের ওভারে জোড়া চার দিয়ে শুরু করে নিয়মিতই বাউন্ডারি হাঁকাতে থাকেন মায়ারস। ক্যারিবীয়দের রানও বাড়তে থাকে তরতর করে।

ইনিংসের ৫০তম ওভারে আজ প্রথমবারের মতো আক্রমণে এসেই মায়ারসকে ফেরান মেহেদি হাসান মিরাজ। ওভারের শেষ বলে তার ভেতরে ঢোকা বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন ৭টি চারের মারে ৬৫ বলে ৪০ রান করা অভিষিক্ত মায়ারস। এর আগে ব্রাথওয়েট আউট হওয়ার ওভারেই এজ হয়ে আসা বল চলে যায় লিটনের দুই পায়ের ফাঁক দিয়ে, বেঁচে যান সেশন শেষে ৩৪ রানে অপরাজিত থাকা ব্ল্যাকউড।

এছাড়া একটি লেগ বিফোরের সিদ্ধান্তে রিভিউ নেয়নি বাংলাদেশ। রিপ্লেতে দেখা গেছে, সেই বলে আউট ছিলেন ব্যাটসম্যান। পরে মেহেদি মিরাজের বলে শর্ট লেগে দাঁড়ানো ইয়াসির রাব্বির হাতের কাছ দিয়ে চলে যায় একটি ক্যাচ। ইয়াসির রাব্বি আগেই উঠে দাঁড়ানোয় নাগাল পাননি সেই বলের। যার ফলে প্রথম সেশনে ৩ উইকেটের বেশি নিতে পারেনি বাংলাদেশ।