পুরো বছরের মধ্যে একটি মাস রয়েছে, যে মাসে গর্ভধারণ করলে প্রিম্যাচিওর বেবি জন্মানোর আশঙ্কা থাকে। এমনই এক তথ্য জানানো হয়েছে ‘প্রসিডিংস অব দ্য ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সের’ এক গবেষণায়।

গবেষকরা বলছেন, মে মাস কনসিভ করার জন্য সবচেয়ে খারাপ। এই সময় কনসিভ করলে সন্তান নির্দিষ্ট সময়ের আগে জন্মে নিতে পারে। আর সময়ের আগে জন্ম নেওয়া শিশুর শরীরে দেখা দেয় নানা সমস্যা।
৬ লাখ ৫৭ হাজার ৫০ জন মায়ের উপর এই গবেষণাটি পরিচালিত হয়েছে। যাদের থেকে জন্ম নেয়া ১.৪ মিলিয়ন শিশুর ওপর গবেষণা চালিয়ে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন গবেষকরা।

গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব নারীরা মে মাসে কনসিভ করেছেন; তাদের ১০ শতাংশই সময়ের আগে সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। গবেষকদের মতে, জানুয়ারি এবং ফেব্রুয়ারি মাস হলো শীতকাল।

এসময় বিভিন্ন সংক্রমণের হার বেশি থাকে। এর ফলে প্রিম্যাচিওর বেবি হতে পারে বলে প্রিন্সেটন ইউনিভার্সিটির সহকারী গবেষক জেনেট কারি ও হ্যানস শোয়ান্ড জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, সময়ের আগেই জন্ম নেওয়া শিশুরা শারীরিক অনেক সমস্যা নিয়ে জন্মগ্রহণ করে। তাদের দুর্বল হজম ক্ষমতা এবং শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা থাকে। অনেক সময় জন্মের পর কয়েক সপ্তাহ এসব শিশুদেরকে হাসপাতালে রাখতে হয়।

এজন্য বিশেষজ্ঞরপা মে মাসে কনসিভ না করার পরামর্শ দিয়েছেন। তবুও যদি অজান্তেই মে মাসে কনসিভ করে থাকেন, তাহলে চিকিৎসকের সঙ্গে ফ্লু ভ্যাকসিনের বিষয়ে কথা বলে নিন।

এছাড়া অসুস্থ মানুষদের কাছ থেকে দূরে থাকুন। বারবার হাত ধুতে হবে এবং চোখে মুখে হাত লাগাবেন না। চিকিৎসকের পরামর্শমতো চললেই আপনি সুস্থ শিশুর জন্ম দিতে পারবেন।