কলা পাকলে হলুদ রং ধারণ করে। যা আমরা নিয়মিত ফল হিসেবে খেয়ে থাকি। অন্যদিকে কাঁচা কলা সবজি হিসেবেই বেশি খাওয়া হয়। তবে লাল কলা কোনটি? এমন প্রশ্ন নিশ্চয়ই সবার মনে উঁকি মারছে! এই কলাকে আসলে অগ্নিসাগর কলা হিসেবেই সবাই চেনেন। এ জাতের কলা বিভিন্ন রঙের হয়ে থাকে।

বিশ্বব্যাপী এটি রেড ব্যানানা বা লাল কলা নামে পরিচিত। অগ্নিসাগর কলার খোসার রং হলুদাভ কমলা, গাঢ় কমলা, লাল এবং লালচে বেগুনি হয়ে থাকে। এশিয়া ও দক্ষিণ আমেরিকার অনেক দেশে জন্মে এই কলা। বাংলাদেশেও এখন লাল কলা চাষ হচ্ছে।

jagonews24

লাল কলার ভেতরটা বাদামি রঙা, তবে কখনো কখনো গোলাপী আভাও থাকে। এ জাতের কলায় ক্যারোটিন ও ভিটামিন সি-এর পরিমাণ বেশি থাকে।

লাল কলা রক্তে শর্করার মাত্রা হ্রাস করে এবং হজম ক্ষমতা বাড়ায়। পুষ্টিতে পরিপূর্ণ একটি লাল কলা প্রায় ১০০ গ্রাম হয়, এতে খুব অল্প পরিমাণে ফ্যাট থাকে এবং প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে।

jagonews24

এছাড়াও, লাল কলাতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, থিয়ামিন, ভিটামিন বি-৬ এবং ফোলেট থাকে। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক লাল কলার উপকারিতা সম্পর্কে-

** লাল কলা কার্বোহাইড্রেটের একটি ভালো উৎস। এটি এনার্জি প্রদান করে এবং রক্ত প্রবাহকে বাড়িয়ে তোলে।

jagonews24

** নিয়মিত লাল কলা খেলে এটি আপনার রক্তচাপ বাড়তে বাধা দেয়। সেইসঙ্গে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণেও কাজ করে।

** লাল কলায় প্রচুর পরিমাণে পটাসিয়াম থাকে। হৃদরোগের ঝুঁকি হ্রাসে পটাসিয়ামের ভূমিকা দারুণ কাজ করে।

** লাল কলা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে কাজ করে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, লাল কলার কম গ্লাইসেমিক প্রতিক্রিয়া ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য উপকারি হতে পারে।

jagonews24

** লাল কলা চোখের জন্যও খুব উপকারি। এই কলায় এমন উপাদান রয়েছে, যা আমাদের চোখের জন্য খুব ভালো।

** অনেকেই কিডনির স্টোনে ভুগে থাকেন। এ কলা নিয়মিত খেলে কিডনির পাথর দূর হয়। লাল কলাতে প্রচুর পরিমাণে পটাসিয়াম থাকে, যা কিডনিতে পাথর জমতে দেয় না।

jagonews24

** এটি হার্টের রোগ এবং ক্যান্সারের বিরুদ্ধেও সুরক্ষা দেয়।

** এই কলা নিয়মিত গ্রহণের ফলে হাড়ও মজবুত হয়।

jagonews24

** লাল কলাতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-সি রয়েছে। যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

** এতে প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদানও রয়েছে, যা আমাদের ত্বক ও স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী।