নারায়ণগঞ্জের রুপগঞ্জে গত ১১ জুন থেকে কার্যকর হওয়া লকডাউন সফল হয়েছে। আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) শেষ হতে যাওয়া এই লকডাউনকালীন সময়ে নতুন করে কেউ আক্রান্ত হয়নি। আর আগে থেকে আক্রান্তদের বেশিরভাগই এখন সুস্থ। মানুষের ঘরে অবস্থান করার কারণেই এই সাফল্য এসেছে বলে জানা গেছে।

জানা যায়, গত ১১ জুন পর্যন্ত রপগঞ্জ সদর ইউনিয়নে মোট ৮৪ জনের দেহে পাওয়া গিয়েছিল করোনাভাইরাস। এরপর ১২ জুন থেকে ২ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন করা হয় গোটা ইউনিয়ন। লকডাউন কার্যকরে স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিরা রেখেছিলেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।

এ বিষয়ে রুপগঞ্জ থানার ওসি আল মামুন সরকার জানান, দিনরাত আমাদের লোকজন সচেষ্ট ছিল যাতে এই এলাকায় কেউ বাহির কিংবা প্রবেশ না করতে পারে। যার কারণেই লকডাউন সফল হয়েছে। এছাড়া স্থানীয় জন প্রতিনিধিরা স্বেচ্ছাসেবীদের মাধ্যমে নিরলস কাজ করে গিয়েছেন।

রুপগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মমতাজ বেগম জানান, আমরা মানুষকে বুঝাতে পেরেছি যে লকডাউন মানলে তাদের জন্যই ভাল হবে। তাই তারা মেনেছে এবং লকডাউন সফল করতে পেরেছে।

এই ইউনিয়নের মোট জনসংখ্যা ৫০ হাজার। লকডাউনের আগে আক্রান্ত ৮৪ জনের মাঝে ৬১ জনই এখন সুস্থ। নতুন করে কেউ শনাক্ত হয়নি। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ২৩ জন।