News

ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের ভিকটিম অর্ধ লক্ষাধিক বাংলাদেশি

সিটিজেন/গ্রিন কার্ড ধারীদের নিকটাত্মীয়দের অভিবাসন মর্যাদায় যুক্তরাষ্ট্রে আসার পথ রহিত করা হলো ৬০ দিনের জন্য। ২২ এপ্রিল বুধবার অপরাহ্নে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প স্বাক্ষরিত এক নির্বাহী আদেশ অনুযায়ী ২২ জুন পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে এবং এর গতি-প্রকৃতি আলোকে পরবর্তীতে সময়সীমা বাড়ানো হতেও পারে। 

করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে সোয়া দুই কোটি আমেরিকান বেকার হয়ে পড়ার পরিপ্রেক্ষিতে নতুন অভিবাসীদের আগমণ আপাতত: বন্ধ করা হলো। 

এ প্রসঙ্গে ট্রাম্প বলেছেন, আমেরিকানদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা তথা তারা যাতে বেকার না থাকে সেজন্যে এমন পদক্ষেপ নিতে হলো। কারণ, আমি সবসময়ই আমেরিকানদের স্বার্থে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছি। করোনার কারণে ২ কোটি ৬০ লাখ আমেরিকান বেকার হয়েছে। বিদ্যমান লকডাউন উঠিয়ে নেয়ার পরই সকল আমেরিকান যাতে কাজ পায় সেজন্যেই এটি করা হলো। শুধু তাই নয়, সিটিজেনদের চিকিৎসা-সেবা অব্যাহত রাখতেও আপাতত: নতুন লোক আসার প্রয়োজন নেই। ৬০ দিনের আলোকে পরবর্তীতে এই নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানো হতেও পারে বলে উল্লেখ করেন ট্রাম্প।

চীনের সীমানা পেরিয়ে করোনাভাইরাসের বিষাক্ত ছোবলে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে বিশ্বের ২১০টি দেশ ও অঞ্চল। প্রতি মুহূর্তে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এমন পরিস্থিতিতে চীনে ফের করোনার সংক্রমণ শুরু হয়েছে। দ্বিতীয় দফায় করোনার সংক্রমণ হওয়ার পর উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় হারবিন শহর লকডাউন করে দেয়া হয়েছে। শহরটিতে প্রায় এক কোটি মানুষের বসবাস। 

শহরের কর্তৃপক্ষ বলছে, স্থানীয়ভাবে নয় বরং বাইরে থেকে আসা ব্যক্তির মাধ্যমে নতুন করে সেখানে করোনার সংক্রমণ হয়েছে।

শহরটিতে প্রায় এক কোটি মানুষের বাস। করোনার সংক্রমণ হওয়ার পর স্থানীয় কর্তৃপক্ষ শহরটিতে বাইরের বাসিন্দা ও তাদের গাড়ি আবাসিক ভবনে প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে।