ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

অনলাইন ডেস্ক

সশস্ত্র গোষ্ঠীর তালিকায় তালেবানের পরে শিবির

বিশ্বের ১০টি সক্রিয় সশস্ত্র গোষ্ঠীর তালিকায় বাংলাদেশের ইসলামী ছাত্রশিবিরের নাম এসেছে। এ তালিকায় ১ নম্বরে আছে থাইল্যান্ডের বারিসান রেভুলুসি নাসিওনাল। দ্বিতীয় স্থানে আছে তালেবান। তালিকায় ৩ নম্বরে আছে জামায়াতে ইসলামীর ছাত্রসংগঠন শিবিরের নাম।

‘অভ্যুত্থান’ ঢাকাতেই হয়েছে, চট্টগ্রামে নয় (পরের অংশ )

অপরাধী প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত নির্দোষ
আমি মনে করি, জেনারেল এরশাদ ও তাঁর সহযোগীদের বিরুদ্ধে জেনারেল মঞ্জুর হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও দোষী সাব্যস্ত না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা নির্দোষ। তাঁদের বিচার স্বচ্ছ হওয়া উচিত। এর ভিত্তি হবে পেশাদারির ভিত্তিতে পাওয়া তথ্য-প্রমাণ ও যোগ্য প্রসিকিউশন।
আত্মপক্ষ সমর্থনের অধিকার গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে একটি পবিত্র ব্যাপার। যদিও তথাকথিত সেই চট্টগ্রাম বিদ্রোহের ঘটনায় যে তরুণ সেনা কর্মকর্তাদের এরশাদ নির্যাতন করে ফাঁসিতে ঝুলিয়েছিলেন, তাঁদের তিনি এ অধিকারের সুযোগ দেননি। কিন্তু যে অধিকার এরশাদ তাঁদের দেননি, ন্যায়বিচারের স্বার্থে তাঁকে সেই অমূল্য অধিকারটি দিতে হবে।
মঞ্জুর হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত এমন আরও অনেকে থাকতে পারে, যাদের বিরুদ্ধে এখনো পর্যন্ত আনুষ্ঠানিক অভিযোগ গঠন করা হয়নি। আমার ধারণা, আমার সাক্ষী যে ব্যক্তির নাম বলেছিলেন, তিনি অভিযোগপত্রে নেই। কথিত আছে, সেই ব্যক্তিই মঞ্জুরকে হত্যা করেন। তিনি একজন উচ্চপদস্থ সেনা কর্মকর্তা। মঞ্জুরকে হত্যা করতেই তিনি ঢাকা থেকে এসেছিলেন। আবার মঞ্জুর হত্যাকাণ্ডে একমাত্র তিনিই নন, আরও অনেকেই জড়িত থাকতে পারেন। এ অভিযোগ সত্য হলে যে ব্যক্তিটি ট্রিগার চেপেছিলেন, তিনি একাই নিশ্চয়ই সবকিছু করেননি।
তদুপরি ঘটনার চাক্ষুষ সাক্ষী আমার সেই সোর্সই এ ঘটনার একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী নন। মঞ্জুরের সেলে সেই ঊর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তাকে অনেকেই প্রবেশ করতে দেখেছেন। তাঁর সেই প্রবেশাধিকারকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ভয়ের কারণে অনেকে গত ৩০ বছরে মুখ খোলেননি। এই ভীতি দূর করার মতো একটি পরিস্থিতি কি সৃষ্টি হয়েছে বা তা কি সৃষ্টি করা সম্ভব? যাঁরা এ হত্যাকাণ্ড পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন করেছেন, এভাবে তাঁদের পার পাওয়ার সময় কি শেষ হবে?
বড় একটি পরিবর্তনের সময় এসেছে। নিম্ন আদালতে এ মামলাটি যেভাবে পরিচালনা করা হয়েছে, তাতে ন্যায়বিচারকে প্রহসন করা হয়েছে। আর যাঁরা এটি পরিচালনা করেছেন, তাঁরা নিজের পেশার সঙ্গে গুরুতর অসদাচরণ করেছেন। দুই দশকে ২২ জন বিচারক এ মামলার শুনানিতে অংশ নিয়েছেন। পরে আবার তাঁদের অন্য দায়িত্বে পাঠানো হয়েছে। রাজনৈতিক ফুটবল হিসেবে মামলাটিকে নিয়ে খেলাধুলা চলছেই।

ক্ষোভ আর অশ্রুতে নিহতদের স্মরণ



ফুলে ফুলে ভরে আছে কর্নেল মোয়াজ্জেম হোসেনের কবর। পাশে দাঁড়িয়ে নীরবে চোখের জল ফেলছেন বৃদ্ধ মা। দাদির পাশে মোয়াজ্জেমের দুই ছেলে। তাঁদের মতো অনেকেই আজ মঙ্গলবার সকালে যান বনানীর সামরিক কবরস্থানে। শোকে, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় স্মরণ করেন না-ফেরার দেশে চলে যাওয়া প্রিয়জনকে।

পিলখানা হত্যাকাণ্ডের পাঁচ বছর পূর্তি আজ মঙ্গলবার। বিপথগামী জওয়ানদের বিদ্রোহে নিহত সেনা কর্মকর্তাদের স্বজনদের দেওয়া ফুলে ছেয়ে গেছে বনানীর সামরিক কবরস্থান।

নিহতদের স্মরণে সামরিক আনুষ্ঠানিকতাও ছিল আজ। সশস্ত্র বাহিনীর পদস্থ কর্মকর্তারাও বনানীর সামরিক কবরস্থানে ছিলেন। কিন্তু সবকিছু ছাপিয়ে ক্ষোভ ছিল নিহতের পরিবারের স্বজনদের। তাঁদের অভিযোগ, নারকীয় এই ঘটনার দিনে এশিয়া কাপ ক্রিকেটের উদ্বোধনের আয়োজন বড়ই বেমানান। এ নিয়ে পরিবারের লোকজনের ক্ষোভের অন্ত নেই।

পিলখানা হত্যাকাণ্ডের শিকার সেনা কর্মকর্তাদের বেশির ভাগেরই দাফন হয়েছে বনানীর সামরিক কবরস্থানে। কয়েকজনকে তাঁদের গ্রামের বাড়িতে দাফন করা হয়েছে। কবরস্থানে মাঝামাঝি এক সারিতে এসব কর্মকর্তাকে দাফন করা হয়েছে। সবার আগে বিডিআরের মহাপরিচালক শাকিল আহমেদ ও তাঁর স্ত্রীর কবর।

কবরগুলো সারি করে বাঁধানো হয়েছে সিরামিকের ছোট দেয়াল আর স্টিলের রেলিং দিয়ে। মাঝে কালো সিরামিক লাগানো স্মৃতিস্তম্ভ। তাতে তিন সারিতে নিহত সব কর্মকর্তা ও সদস্যদের নাম লেখা। এই নামফলকের বেদিতেই সকাল থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান সবাই।

সকাল নয়টার আগে বনানীর সেনা কবরস্থানে আসেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানসহ বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তারা। আসেন নিহতদের পরিবারের সদস্যরাও।

নিহতদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রপতির পক্ষে সামরিক সচিব মেজর জেনারেল আবুল হোসেন, প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন, সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল ইকবাল করিম ভূইয়া, নৌবাহিনীর প্রধান ভাইস অ্যাডমিরাল এম ফরিদ হাবিব, বিমানবাহিনীর প্রধান এয়ার মার্শাল মোহাম্মদ ইনামুল বারী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব সি কিউ কে মোস্তাক আহমেদ ও বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ।

আওয়ামী লীগের পক্ষে ফারুক খান, এ বি তাজুল ইসলামসহ নেতারা শ্রদ্ধা জানান। সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদও ফুল দিতে যান।

ফুল দেওয়ার পর নিহতদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন উপস্থিত সবাই। তাঁদের স্মরণে দোয়া করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন সেনা মসজিদের ধর্মীয় শিক্ষক।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে জ্যেষ্ঠ নেতারা চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এবং দলের পক্ষ থেকে নিহতদের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন।

শেখ হাসিনার নির্বাচনী এলাকায় বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থী জয়ী

আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী এলাকা রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থী সাবেক সাংসদ নূর মোহাম্মদ মণ্ডল জয়ী হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৭৪ হাজার ৯৪২ ভোট।
নূর মোহাম্মদের প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ-সমর্থিত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এ কে এম ছায়াদত হোসেন ওরফে বকুল পেয়েছেন ৭০ হাজার ৮৭৭ ভোট।
গতকাল সোমবার রাত পৌনে ১২টার দিকে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কামরুল হাসান হাওলাদার ওই ফলাফল জানান।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় জানায়, উপজেলা নির্বাচনে নারী ভোটারের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। শান্তিপূর্ণ-ভাবে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলায় মোট ভোটার দুই লাখ ৬২ হাজার।
এতে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মেশকোয়ারা হাবিব ওরফে মুক্তি পান ১৩ হাজার ৯৫২ ভোট।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত মুনায়েম সরকার জয়ী হয়েছেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র হাবিবা খাতুন জয়ী হয়েছেন।
দশম সংসদ নির্বাচনে পীরগঞ্জ উপজেলার এ আসন থেকে শেখ হাসিনা নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি এ আসন ছেড়ে দিলে উপনির্বাচনে শিরীন শারমিন চৌধুরী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাংসদ নির্বাচিত হন। কিন্তু পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ একক প্রার্থী দিতে পারেনি। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ জেলা কমিটির সহসভাপতি এ কে এম ছায়াদত হোসেনকে সমর্থন দিলেও মেশকোয়ারা হাবিব ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেন।
অন্যদিকে ১৯-দলীয় জোট-সমর্থিত একক প্রার্থী নূর মোহাম্মদ মণ্ডল। তিনি ২০০১ সালের সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির হয়ে নির্বাচন করে শেখ হাসিনাকে পরাজিত করে সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরবর্তী সময়ে তিনি ২০০৮ সালে জাতীয় পার্টি ত্যাগ করে বিএনপিতে যোগ দেন এবং ওই একই বছর সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে শেখ হাসিনার কাছে হেরে যান। সেই নূর মোহাম্মদ মণ্ডল এবার উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ঘটনা ধামাচাপা দিতে ‘ক্রসফায়ার’

প্রিজন ভ্যান থেকে ছিনিয়ে নেওয়া জেএমবি সদস্য হাফেজ মাহমুদকে ‘ক্রসফায়ারে’ হত্যার ঘটনা পুরো বিষয়টিকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
গতকাল সোমবার রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর মির্জা ফখরুল এই অভিযোগ করেন। প্রিজন ভ্যান থেকে আসামি ছিনিয়ে নেওয়া ও ক্রসফায়ারের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি। দলের সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আকবর খন্দকারের কারামুক্তি উপলক্ষে জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।
সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘গোটা বিষয়টা উদ্বেগজনক। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে যে ধরনের নিরাপত্তা থাকা দরকার ছিল, তা ছিল না। এটি সরকারের চরম ব্যর্থতা। পরবর্তী সময়ে একজন আসামিকে ধরে আবার ক্রসফায়ারে দেওয়া হলো। এ ক্রসফায়ারের ফলে মানুুষের মনে অনেক প্রশ্ন জেগেছে, এর ভেতর কী লুকিয়ে ছিল? ক্রসফায়ার দেওয়া মানে গোটা বিষয়টাকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা।’ তিনি মনে করেন, ওই জঙ্গিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে অনেক তথ্য পাওয়া যেত।
এক প্রশ্নের উত্তরে মিজা ফখরুল দাবি করেন, আওয়ামী লীগদলীয় সাবেক মন্ত্রী-সাংসদদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের অনুসন্ধান ‘আই ওয়াশ’। তিনি বলেন, ক্ষমতাসীনদের পর্বতসমান দুর্নীতি ভুলিয়ে দিতে দুদক তামাশা করছে।
রিজভীর সংবাদ সম্মেলন: বিকেলে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, উপজেলা নির্বাচনের সময় জঙ্গি ইস্যুর মতো একটি ঘটনাকে যথেষ্ট ‘রহস্যজনক’ মনে হচ্ছে। তিনি অভিযোগ করেন, ২৭ ফেব্রুয়ারি যেসব উপজেলায় নির্বাচন হচ্ছে সেখানে ১৯ দল-সমর্থিত প্রার্থীদের বাড়িতে হামলা চালানো হচ্ছে।

ছাত্রদলের ওপর খালেদা জিয়ার অসন্তোষ

ছাত্রদলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির ওপর অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। শিগগির নতুন কমিটি করার কথাও তিনি সংগঠনটির নেতাদের জানিয়েছেন। তবে নতুন কমিটি না হওয়া পর্যন্ত বর্তমান কমিটিকে দায়িত্ব পালন করতে বলেছেন।
গতকাল সোমবার রাতে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের নেতাদের তাঁর গুলশান কার্যালয়ে ডেকে পাঠান। প্রায় দুই ঘণ্টা ছাত্রদলের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি।
বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির এমন একাধিক নেতা প্রথম আলোকে জানান, সরকারবিরোধী আন্দোলনে মাঠে না থাকা এবং ক্যাম্পাসে অবস্থান নিতে না পারায় বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির ওপর চরম অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন খালেদা জিয়া।

দুই নেত্রীর মধ্যে সংলাপ চেয়ে করা রিট খারিজ



দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক সংকট নিরসনে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসন এবং তাঁদের জোটের মধ্যে সংসদে ও সংসদের বাইরে রাজনৈতিক সংলাপ চেয়ে করা রিট আবেদনটি খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ মঙ্গলবার বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপতি জাফর আহমেদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

রায়ের বিষয়টি জানিয়ে আবেদনকারী আইনজীবী মুহাম্মদ ইউনূস আলী আকন্দ বলেন, খালেদা জিয়া বিরোধীদলীয় নেতা নেই। নির্বাচন হয়ে গেছে। দেশে স্বাভাবিক অবস্থা বিরাজ করছে। তাই আবেদনটি অকার্যকর বলে আদালত তা খারিজ করে দিয়েছেন।

গত ১৪ মার্চ হাইকোর্টে রিট আবেদনটি করেন সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবী। এতে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দল, বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮ দল, নির্বাচন কমিশন, মন্ত্রিপরিষদ সচিব ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে বিবাদী করা হয়। তবে সম্পূরক আবেদনে তত্কালীন প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেতাকে বিবাদী করা হয়।

পরে ২৭ মার্চ হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ এ আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে  রুল জারি করেন। রুলে  বর্তমান (দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে) রাজনৈতিক সংকট নিরসনে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসন এবং তাঁদের জোটের মধ্যে সংসদে এবং সংসদের বাইরে রাজনৈতিক সংলাপ অনুষ্ঠানের নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়।

শাহজালাল বিমানবন্দরে সাড়ে চার কেজি সোনা উদ্ধার

রাজধানীর হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আজ মঙ্গলবার পরিত্যক্ত অবস্থায় ৪০টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়েছে।

উদ্ধার করা সোনার ওজন চার কেজি ৬০০ গ্রাম; যার বাজারমূল্য দুই কোটি ১০ লাখ টাকা। শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের সহকারী কমিশনার উম্মে নাহিদা এ তথ্য জানান।

আজ বেলা ১১টার দিকে বিমানবন্দরের ৫ নম্বর বেল্টের শৌচাগারের ভেতরে পরিত্যক্ত অবস্থায় এসব সোনা পড়ে ছিল।

বিসিককে সব ধরনের নীতি-সহায়তা দেওয়া হবে: শিল্পমন্ত্রী



দেশের শিল্পায়নের অভিযাত্রায় রোল মডেল হিসেবে তুলে ধরতে সরকারের পক্ষ থেকে বিসিককে সব ধরনের নীতি-সহায়তা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

আজ মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর একটি হোটেলে ‘বিসিকের অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যত্’ শীর্ষক দিনব্যাপী গোলটেবিল আলোচনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমির হোসেন আমু এ কথা জানান। বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক) এই গোলটেবিল আলোচনার আয়োজন করে। এতে সভাপতিত্ব করেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দিন আবদুল্লাহ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী আরও বলেন, বিসিকের সাংগঠনিক কাঠামো সংস্কার, জনবলের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও উদ্যোক্তাদের জন্য অবকাঠামোসহ অন্যান্য সুবিধা সম্প্রসারণে সরকার কাজ করবে।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, বিসিকে অনেক ধরনের শিল্প গড়ে উঠলেও খাদ্য, পোলট্রি ও ফিশারি খাতে তেমনটি গড়ে ওঠেনি। এদিকে বিসিকের নজর দেওয়া প্রয়োজন।

আলোচনায় অংশ নিয়ে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ বলেন, সরকারের উচিত ক্ষুদ্র ও কুটিরশিল্পে যথেষ্ট পরিমাণ প্রণোদনা দেওয়া।

গোলটেবিল আলোচনায় স্বাগত বক্তব্যে বিসিক চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার বলেন, বিসিকের অতীত নিয়ে অহংকার করার মতো অনেক বিষয় আছে। কিন্তু এ খাতের কিছু দুর্বলতাও আছে। এসব দুর্বলতা খুঁজে বের করতেই এই গোলটেবিল আলোচনার আয়োজন করা হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্লানিং কমিশনের সদস্য উজ্জ্বল বিকাশ দত্ত ও হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন উপস্থিত ছিলেন।

আ.লীগের মনোনয়ন পেলেন অনুপম

টাঙ্গাইল-৮ আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন অনুপম শাহজাহান (জয়)। তিনি প্রয়াত সাংসদ শওকত মোমেন শাহজাহানের ছেলে। গতকাল শনিবার রাতে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা অনুপম শাহজাহানকে মনোনয়ন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন।
মনোনয়ন পাওয়ার কথা অনুপম শাহজাহান প্রথম আলোর কাছে স্বীকার করেন। আগামী ২৩ মার্চ এ আসনে উপনির্বাচন হবে। আজ রোববার মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ।

Page 32 of 32