ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Saturday, 08 March 2014 19:38

টুম রেইডার

Rate this item
(0 votes)

লারা ক্রফট চরিত্রটি হলো গেমস দুনিয়ার প্রথম নারী চরিত্র, যাকে দেখা গেছে টুম রেইডার গেমে। এটি অ্যাকশন অ্যাডভেঞ্চার গেম, যার প্রকাশক স্কয়ার নিক্স এবং নির্মাতা ক্রিস্টাল ডায়নামিক্স। এই গেমের সব সিরিজ এখন পর্যন্ত পাঁচ হাজার ডলার আয় করেছে। বিপজ্জনক পরিস্থিতি, রহস্যের নেশা এবং নিজেকে বাঁচিয়ে দুর্গম পথ পাড়ি দেওয়া, এই সবকিছুর মিশেল রয়েছে এই গেমে।

১৯৯৬ সালে প্রথম বাজারে আসার পর এই গেমটির নবম

সংস্করণ বের হয় ২০১৩ সালের ৫ মার্চ। ১৯৯৬-১৯৯৭ সালের দিকে গেমটি দ্বিমাত্রিক (টুডি) থাকলেও, ২০০৩ সাল থেকে গেমটি ত্রিমাত্রিক (থ্রিডি) হয়ে মুক্তি পায়। ২০১৩ সালে টুম রেইডার গেমটি দ্বিতীয় সেরা গেম হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে।

টবি গার্ড লারা ক্রফট চরিত্র এবং টুম রাইডার গেমের নির্মাতা। মাত্র ১৯ বছর বয়সে ইডিয়স নামের প্রতিষ্ঠানে তিনি প্রধান ডিজাইনার হিসেবে যোগ দেন। জীবনের প্রথম থেকেই তিনি ছিলেন ইন্ডিয়ানা জোনসের ভক্ত। টবির ইচ্ছা ছিল তিনি এমন একটি গেম তৈরি করবেন, যেখানে মূল চরিত্রটি হবে ধূর্ত, বেগবান এবং শক্তিশালী। তিনি চিন্তা করেন, বাজারের প্রায় সব গেমের প্রধান চরিত্র পুরুষ। তাই তিনি নারী চরিত্র নিয়ে গেম বানানোর পরিকল্পনা করেন। তাঁর সহকর্মীরা ভেবেছিলেন এটি নেহাতই পাগলামি। তাঁরা প্রথমে কেউই সায় দেননি। টবি একাই কাজ শুরু করেন। পরে তাঁর সহকর্মীরা তাঁকে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেন। তিনি জানতেন, এই গেম বাজারে একটি নতুন যুগের সূচনা করবে। প্রথমে চিন্তা করা হয়েছিল লারা চরিত্রটি কোনো একজন নারী কুস্তিবিদকে কেন্দ্র করে করা হবে। কিন্তু টবি চাইছিলেন চরিত্রটির শারীরিক কাঠামো হবে ছিমছাম। সব কাজ সম্পন্ন করার পর অবশেষে ১৯৯৬ সালে গেমটির প্রথম সংস্করণ বের হয়। সেবার বছরের সেরা গেম হিসেবে নির্বাচিত হয় টুম রেইডার। ২০০১ সালে সাইমন ওয়েস্টের পরিচালনায় নির্মিত হয় টুম রেইডার চলচ্চিত্রটি। লারা ক্রফটের চরিত্রে অভিনয় করেন আঞ্জেলিনা জোলি।