Print this page
Saturday, 08 March 2014 19:33

নিজে যখন নায়ক

Rate this item
(0 votes)

সবাই নিজেকে নায়ক বা হিরো হিসেবে দেখতে চায়। নিজের অবস্থান নিয়ে যেতে চায় সবার সামনে। আর এই কাজটা সহজে করা যাবে ফলেন অ্যানচ্যান্ট্রেস—লিজেন্ডারি হিরোস গেমসে। প্রায় সব ধরনের গেমসে সুপার হিরোদের অনেক ক্ষমতা দিয়ে তৈরি করা হয়। ফলে পুরো গেমে সুপার হিরোরা সবকিছু সহজে জয় করে নিতে পারে, কিন্তু ফলেন অ্যানচ্যান্ট্রেস খেলায় গেমের সুপার হিরোদের নিজেদের সব যোগ্যতা অর্জন করে নিতে হয়। ফলে গেমার তার ইচ্ছেমতো দুনিয়া তৈরি করে নেয়ার সুযোগ পাবে। নিজের যোগ্যতা নিয়ে

টিকে থাকার মাধ্যমে নতুন নতুন ম্যাপ আর সঙ্গে পাওয়া যাবে আরও সব নতুন সুযোগ। সেই সঙ্গে নিজের ইচ্ছামতো বিপক্ষ দলের সংখ্যা কম বা বেশি করার সুযোগও পাওয়া যাবে। গেমটিতে সব ধরনের ইউনিট নিয়েই সমানভাবে প্রতিরক্ষা ও আক্রমণ বিভাগ তৈরি করা। দুটি দল সমানভাবে গড়ে তুলতে পারলে তার প্রভাব পুরো খেলার ওপরই পড়বে। গেমটি খেলার সময় মোটামুটি সব সময়ই নতুন বাহিনী তৈরি ও শিকার শত্রুর মোকাবিলা নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হবে। খেলায় শক্তিমত্তা বোঝার ভালো উপায় হলো কতটা নিখুঁতভাবে শত্রুদের শেষ করা যায় তার ফলাফল বুঝে। খেলায় দুজন চ্যাম্পিয়ন ব্যবহার করা যাবে, তবে ফলেন অ্যানচ্যান্ট্রেসের সব দুঃখ-দুর্দশা শেষ করে এক নতুন চ্যাম্পিয়নকে খুঁজে বের করতে হবে। সব মিলিয়ে টান টান উত্তেজনার একটা গেমস হচ্ছে ফলেন অ্যানচ্যান্ট্রেস—লিজেন্ডারি হিরোস। গেমসের গ্রাফিকস এক কথায় অসাধারণ। যদি হাই কোয়ালিটি রেজল্যুশন এবং সবকিছু ডিটেনলড করে খেলা যায়, তবে খেলার মজা বেড়ে যাবে বহুগুণ। প্রতিটি স্থাপনা ও চরিত্রের মডেল অত্যন্ত যত্ন নিয়ে এবং নিখুঁত করে ডিজাইন করা হয়েছে। গেমটিতে প্রচুর লাইটিং ইফেক্ট ও গামা ব্যবহার করা হয়েছে। একই অবস্থা সাউন্ডের ক্ষেত্রে। প্রতিটি শব্দই গেমারের কাছে ভিন্ন আমেজ সৃষ্টি করবে। ফলে বেশি দেরি না করে এখনই বসে পড়তে পারেন কম্পিউটারের সামনে।
যা যা প্রয়োজন
অপারেটিং সিস্টেম: উইন্ডোজ এক্সপি, ভিসতা, উইন্ডোজ সেভেন
প্রসেসর: ইন্টেল ডুয়াল কোর ২.৪ গিগাহার্টজ, এএমডি অ্যাথলন
৬৪ এক্স-টু ডুয়াল কোর ৪০০০+
ভিডিও কার্ড: থ্রিডি গ্রাফিকস এক্সিলারেটর
সিডি-রম ড্রাইভ: ৮ এক্স
র‌্যাম: ২ গিগাবাইট
ভিডিও কার্ড: এনভিডিয়া জিফোর্স ৭৯০০
ডাইরেক্ট এক্স: ৯.০
হার্ডডিস্ক: ২ গিগাবাইট খালি জায়গা