ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Saturday, 08 March 2014 02:04

টেবিল টেনিসের নির্বাচনে তবু ফোরামের কালো ছায়া!

Rate this item
(0 votes)

সরকারি শুদ্ধি অভিযানকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ফোরাম আবারো কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করেছে বাংলাদেশ টেবিল টেনিস ফেডারেশনে। বৃহস্পতিবার ফেডারেশনের ১৬টি সদস্য পদের নির্বাচনে তারাই জিতেছে সংখ্যাগরিষ্ঠ পদে। ১৯ জন প্রতিদ্বন্ধীর মধ্যে জেলা ও বিভাগীয় ক্রীড়া অ্যাসোসিয়েশন (ফোরাম) থেকে নির্বাচিত হয়েছেন ৯ জন, বাকি ৭ জন ঢাকার সংগঠক। অন্য ৮টি পদের জন্য একাধিক প্রার্থী না থাকায় নির্বাচনের প্রয়োজন হয়নি, আর সভাপতিতো সরকার মনোনীতই। সুবাদে ২৫ সদস্যের নতুন নির্বাচিত কমিটি এখন টেবিল টেনিস ফেডারেশনের দায়িত্ব নেওয়ার অপেক্ষায়।

কিন্তু সহ-সভাপতি জোবেরা রহমান লিনু এই কমিটি নিয়ে তেমন সন্তুষ্ট নন। শুনুন সাবেক কৃতী টেবিল টেনিস খেলোয়াড়ের মুখেই, "গুনী সংগঠকরা নির্বাচিত হয়ে আসতে না

পারলে তো নির্বাচন করে লাভ নেই। পিলা (কাজী মঈনুজ্জামান পিলা) ভাইয়ের মতো সংগঠক নির্বাচিত হননি। সাবেক খেলোয়াড়রা নির্বাচিত হয়ে আসতে না পারাটাও দুর্ভাগ্যজনক।" জাতীয় দলের সাবেক খেলোয়াড় আল মারুফ এনায়েত হোসেন শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের টেবিল টেনিস সম্পাদক হয়েও নির্বাচিত হতে পারেননি। এছাড়া আগে বিভিন্ন সময় টিটি ফেডারেশনের কমিটিতে ছিলেন কাজী মঈনুজ্জামান, যাকে টেবিল টেনিসের সুহৃদ বলেই ভাবেন খেলোয়াড়রা। ঢাকার এই দুই সংগঠকের নির্বাচিত হতে না পারার পেছনে ফোরামের হাত আছে মনে করেন জাতীয় টেবিল টেনিস চ্যাম্পিয়ন মাহবুব বিল্লাহ, "ফোরামের ভোট বেশি, তারা চায়নি বলেই নির্বাচিত হননি তারা। এতে করে ক্ষতিগ্রস্ত হবে টেবিল টেনিস ফেডারেশনই।"

মোট ৭২ ভোটের মধ্যে ৪০টি ভোটই ফোরামের, তারা যা চেয়েছে তাই হয়েছে। তাদের ৯ সাধারন সদস্যের পাশাপাশি ঢাকা জেলা ক্রীড়া সংস্থার সম্পাদক শামসুল আলম আনু ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক হয়েছেন। কয়েকজন ভাল সংগঠকদের বাদপড়া প্রসঙ্গে ফোরাম নেতা মহিউদ্দিন বুলবুল বলেছেন, "কয়েকজন ভাল সংগঠক আসতে পারেননি, এটা ঠিক। আমার মনে হয় ঢাকার সংগঠকরা অতি আত্মবিশ্বাসী হওয়ার ফল এটা। এরকম হলে তো আর আলোচনার পর্যায়ে থাকে না বিষয়টা, ব্যালটে যেতে হয়।"

অথচ এই ফোরামের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষণা করেছিল বর্তমান তত্ত্বাবধায়ক সরকার। ক্রীড়াঙ্গনকে কলংকিত করার দায়ও আছে তাদের। সরকারের এত ক্ষোভ-বিক্ষোভের পরও তারা টিকে আছে ক্রীড়াঙ্গনে। "আমাদেরও ভুল আছে। অতীতে ক্রিকেটের নির্বাচনে টাকা লেনদেনের ব্যাপার ঘটেছে, তার কলংক আমাদের গায়ে লেগেছে। আমাদের সংশোধন হওয়া উচিত। এছাড়া গত জোট সরকারের সবকিছুর বিপক্ষে কাজ করছে বর্তমান সরকার"-- বলেছেন ফোরাম নেতা গোলাম রসুল মোল্লার উত্তরসূরী বুলবুল।