ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

‘লিগের আকর্ষণ অন্য রকম’

Rate this item
(0 votes)

প্রিমিয়ার হকি লিগে খেলতে পারবেন না জেনেও গত বছর যোগ দিয়েছিলেন নৌবাহিনীতে। কিন্তু অনেকটা অপ্রত্যাশিতভাবেই লিগে খেলার সুযোগ পেয়েছেন মামুনুর রহমান (চয়ন)। পেনাল্টি কর্নার বিশেষজ্ঞ এরই মধ্যে লিগে করেছেন ১৭টি গোল। জাতীয় দলের অধিনায়ক লিগ শিরোপার স্বপ্ন দেখাচ্ছেন ঊষাকে

 লিগে তো আপনার খেলারই কথা ছিল না। কিন্তু সুযোগটা পেয়ে কেমন লাগছে?
মামুনুর রহমান (চয়ন): এবারের লিগটা দারুণ উপভোগ

করছি। আসলে লিগে তো আমার খেলারই কথা ছিল না। কিন্তু নৌবাহিনীর ক্রীড়া নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের অনুমতির জন্যই আবারও খেলতে পারছি লিগে। আমাদের খেলার অনুমতি দিয়েছে বলে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।

 লিগে খেলতে না পারলে নিশ্চয়ই আফসোস হতো?
মামুনুর: অবশ্যই। লিগ এমন একটা ব্যাপার, এখানে যারা খেলেছে তারাই এর মাহাত্ম্য জানে। যতই ভালোভাবে থাকি না কেন, যতই টাকাপয়সা থাকুক, তার পরও এই খেলাটা ঠিকই মিস করতাম। এই যে দেখেন, প্রতিদিন গোল করছি। মিডিয়ায় ছবি ছাপা হচ্ছে, খবর হচ্ছে। দর্শক খেলা দেখতে আসছে। লিগের আকর্ষণ অন্য রকম, অন্য অনুভূতি।

 শেষ ম্যাচে আবাহনীর সঙ্গে ড্র করলেই তো আপনার দল চ্যাম্পিয়ন।

মামুনুর: ড্র নয়, জয়ই আমাদের লক্ষ্য। আমি এবার ঊষাকে শিরোপা উপহার দিতে চাই। এ জন্য ম্যাচটিকে মোটেই হালকাভাবে নিইনি। আবাহনী অনেক গোছানো দল। আশা করি, প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ একটা ম্যাচ হবে।

 মার্চেই এশিয়ান গেমসের বাছাইপর্ব ঢাকায়। এটা নিয়ে কেমন প্রস্তুতি আপনাদের?

মামুনুর: আমাদের জন্য খুবই ইতিবাচক একটা দিক, লিগের পরই জাতীয় দলের টুর্নামেন্ট খেলতে পারব। এখন আমরা সবাই খেলার মধ্যে আছি। সবার ফিটনেসও ভালো। আশা করি, এটা খুবই কাজে দেবে। কারণ এই লিগে পাকিস্তান থেকে খেলোয়াড় এসেছে। অনেক ভালো খেলোয়াড়ের সঙ্গে খেলছি।

 জাতীয় দলের রিপোর্টিং হলেও ক্যাম্প শুরু হয়নি...

মামুনুর: রিপোর্টিংয়ের পর আমাদের ফিটনেস টেস্ট হয়ে গেছে। তবে পুরোপুরি ক্যাম্প শুরু হবে ১০ বা ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে।

 ঢাকায় হওয়া গত এশিয়ান গেমসের বাছাইয়ে আট দলে পঞ্চম হয়েছিল বাংলাদেশ। এবার আপনাদের লক্ষ্য কী?

মামুনুর: এবার অবশ্যই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য খেলব। সর্বশেষ এশিয়া কাপে খুবই বাজে খেলেছি। ওই দুঃস্বপ্নটা পুরোপুরি ভুলে যেতে চাই। একটা ভালো রেজাল্ট করলে সবাই হকির প্রতি আবারও দৃষ্টি দেবে।

 বাংলাদেশের গ্রুপিংয়ে তো সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ডের মতো দল পড়েছে?

মামুনুর: আমাদের গ্রুপে আছে সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, হংকং ও আফগানিস্তান। এখানে সিঙ্গাপুরই সবচেয়ে কঠিন। ওরা সারা বছর অনুশীলনে থাকে। বিদেশি কোচ আছে সারা বছর। ওদের সঙ্গেই আসল লড়াইটা হবে। বাকি দলগুলোর সঙ্গে আশা করি জিতব।

 জিমি, জাহিদ, পিন্টু, রানা ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক হকিতে নিষিদ্ধ। এদের ক্ষতিটা কতটুকু প্রভাব পড়বে দলে?

মামুনুর: ওদের জায়গা পূরণ করতে একটু সময় লাগবেই। নতুন যেসব খেলোয়াড় উঠে আসছে তারাও অনেক ভালো করছে। তবে জিমি ও রানা যদি থাকত তাহলে দলের শক্তি নিঃসন্দেহে অনেক বেড়ে যেত।

 এবারের লিগে তো সব ক্লাব খেলল না...

মামুনুর: এটা হকির জন্য খুব খারাপ হয়েছে। মোহামেডান, মেরিনার্স এলে জমজমাট লড়াই হতো। এখন তো শুধু ঊষা আর আবাহনীর মধ্যেই শিরোপার লড়াইটা হচ্ছে।