ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

‘সহজাত খেলাটাই খেলে যেতে চাই’

Rate this item
(0 votes)

তিনটি টেস্ট খেলেছেন, তিনটিই বাংলাদেশের বিপক্ষে। ৮৭ গড় ও ৯১.০৯ স্ট্রাইক রেটে রান ১৭৪। মিরপুরে শেষ মুহূর্তে একাদশে ঢুকে করেছেন প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি।
কিথুরুয়ান ভিতানাগের কাছে টেস্ট ক্রিকেট কতই
সহজ যেন! শ্রীলঙ্কার ২২ বছর বয়সী বাঁহাতি ব্যাটসম্যান কথা বললেন তাঁর টেস্ট ক্যারিয়ারের দারুণ শুরু নিয়ে
 প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরির

অনুভূতি কেমন ছিল?
কিথুরুয়ান ভিতানাগে: সত্যিই খুব ভালো লেগেছে। প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি একই সঙ্গে আনন্দ ও স্বস্তির। আমার জন্য আরও ভালো হয়েছে আরেক পাশে মাহেলা থাকায়। ও যেভাবে ব্যাটিং করছিল, তাতে আমার কাজ অনেকটাই সহজ হয়ে গিয়েছিল। আমার সঙ্গে অনেক কথাও বলছিল ও।
 ঠিক কী কী বলেছিলেন মাহেলা জয়াবর্ধনে?
ভিতানাগে: খুব বেশি কিছু বা বড় কিছু নয়, বেসিক ব্যাপারগুলোই বলছিল। আমার সহজাত খেলাটাই যেন খেলি। চাপ না নিয়ে নিই। সত্যি বলতে, আরেক পাশে মাহেলার মতো কেউ থাকলে এমনিতেই সাহস কিছুটা বেড়ে যায়।
 তিনটি টেস্ট খেললেন, তিনটিই বাংলাদেশের বিপক্ষে। ঘরোয়া ক্রিকেটের সঙ্গে কতটা পার্থক্য খুঁজে পাচ্ছেন?
ভিতানাগে: আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটের মান যথেষ্ট উন্নত। বেশ ভালো বোলিং আক্রমণের বিপক্ষে খেলতে হয় আমাদের। টেস্ট ক্রিকেটে মানিয়ে নিতে তাই খুব একটা অসুবিধা হয়নি। স্রেফ মানসিকভাবে নিজেকে একটু তৈরি করে নিতে হয়েছে।
 শ্রীলঙ্কার মিডল অর্ডারে তরুণদের মধ্যে এখন অনেক প্রতিযোগিতা। দিনেশ চান্ডিমাল খেলছেন, স্কোয়াডেই আছেন আশান প্রিয়াঞ্জন। অ্যাঞ্জেলো পেরেরার মতো তরুণেরা উঠে আসছেন। চ্যালেঞ্জটা নিতে কতটা প্রস্তুত?
ভিতানাগে: এমন প্রতিযোগিতা দলের জন্য ভালো। একটা জায়গার জন্য যখন এমন প্রতিযোগিতা, বুঝতে হবে দলের শক্তি অনেক বাড়ছে। আর এটা নিজের জন্যও ভালো, সব সময় ভালো করার তাগিদ থাকবে। জানি যে খারাপ করলেই অন্য কেউ সুযোগটা লুফে নেবে।
 টেস্ট ক্রিকেটও আপনি খেলছেন ওয়ানডের মতো, স্ট্রাইক রেট নব্বইয়ের বেশি। এভাবেই খেলে যেতে চান?
ভিতানাগে: আমি সহজাত খেলাটাই সব সময় খেলতে চাই। আর যে পজিশনে এখন ব্যাটিং করছি (সাত নম্বরে) এটাও আমাকে সহজাত খেলতে সহায়তা করছে। কারণ বেশির ভাগ সময়ই দেখা গেছে, আমি যখন ব্যাটিংয়ে নামছি, দলের তখন দ্রুত রান প্রয়োজন।
 প্রথম টেস্টে অনেক বড় ব্যবধানে জিতেছে শ্রীলঙ্কা। অনেক সময়ই দেখা দেয় এমন বড় জয় অনেকটা অজান্তেই দলে একধরনের আত্মতুষ্টি নিয়ে আসে।
ভিতানাগে: আত্মতুষ্টির কোনো জায়গা নেই। ছেলেরা সবাই আরও একটি ভালো পারফরম্যান্স উপহার দেওয়ার জন্য উন্মুখ হয়ে আছে।
 মিরপুরে লঙ্কান বোলাররা ক্রমাগত শর্ট বল করে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের নাড়িয়ে দিয়েছেন। এখানেও কি একই কৌশল দেখা যাবে?
ভিতানাগে: সেটা নির্ভর করছে ভিন্ন ভিন্ন ব্যাটসম্যানের ওপর। একেকজনের ক্ষেত্রে হয়তো একেক রকম কৌশল থাকবে। তা ছাড়া ম্যাচের পরিস্থিতির ওপরও অনেক সময় নির্ভর করে পরিকল্পনা। তবে এবার বাংলাদেশ শর্ট বোলিংয়ের জন্য প্রস্তুত থাকবে, হয়তো অন্য কিছু ভাবতে হবে আমাদের।