ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Saturday, 08 March 2014 13:43

বাংলাদেশে অতৃপ্তি ঘোচাতে চায় অস্ট্রেলিয়া

Rate this item
(0 votes)

শ্বকাপের সবচেয়ে সফল দল অস্ট্রেলিয়া। রেকর্ড ছয়বার ফাইনাল খেলে ওয়ানডের এ আসরে টানা তিনবারসহ তারা শিরোপা জিতেছে মোট চারবার। অস্ট্রেলিয়ার বর্ণিল ট্রফি শোকেসে শোভা পাচ্ছে আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দুটি শিরোপাও। কিন্তু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শেষ হাসি হাসতে পারেনি তারা একবারও। সংক্ষিপ্ততম সংস্করণে পাঁচবার অংশ নিয়ে ২০১০ সালের আসরে ফাইনাল খেলাটাই তাদের সেরা সাফল্য। তবে মাইকেল ক্লার্কের দৃঢ় বিশ্বাস, বাংলাদেশের আসরে এ অতৃপ্তিও ঘুচবে অস্ট্রেলিয়ার।

 

অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি দলটি যদিও একেবারে নতুন আঙ্গিকে গড়া। ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ জয়ী দলের বেশির ভাগ সদস্যই তো নেই দলটিতে। সংক্ষিপ্ত সংস্করণে না খেলায় ক্লার্ক নিজেও তো আসছেন না বাংলাদেশে। তবে ইংলিশ ও প্রোটিয়াদের বিপক্ষে পাঁচ দিনের ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়ার জয়ের নায়ক পেসার মিচেল জনসন-ডেভিড ওয়ার্নাররা আসছেন। তাঁদের সঙ্গী হবেন অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসন, ব্র্যাড হাডিনরা । এঁদের বাইরে দলটিতে আছেন অ্যারন ফিঞ্চ-জেমস ফকনার-ক্যামেরন হোয়াইটদের মতো ম্যাচ উইনার। টেস্টের সঙ্গে টি-টোয়েন্টির মেজাজে যদিও আকাশ-পাতাল ফারাক, তবে দীর্ঘ পরিসরে জনসন-ওয়ার্নারদের অসাধারণ ফর্ম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও অস্ট্রেলিয়ার সাফল্যে বড় ধরনের প্রভাব রাখবে বলেই বিশ্বাস ক্লার্কের।

সব মিলিয়ে অস্ট্রেলিয়ার শিরোপা জয়ে অনেকটা নির্ভার হয়ে বাজি ধরছেন ক্লার্ক, 'অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপ জিততে পারবে এ আস্থা আমার আছে। আশা করছি জর্জ বেইলির অধিনায়কত্বেও দুর্দান্ত পারফর্ম করবে ওরা। টি-টোয়েন্টি দলটিকে চমৎকারভাবে নেতৃত্ব দিচ্ছে বেইলি। জনসনদের টেস্টের আত্মবিশ্বাসটাও টি-টোয়েন্টি দলকে দারুণভাবে সাহায্য করবে। আর এ জন্যই দলটির পক্ষে বাজি ধরতে পারছি। অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ে প্রকৃতপক্ষেই দারুণ আত্মবিশ্বাসী আমি।'

বাংলাদেশে আসার আগে আগামীকাল শুরু প্রোটিয়াদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজ খেলে নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়ার দারুণ সুযোগ বেইলিদের সামনে। ১৬ মার্চ শুরু হবে ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। অস্ট্রেলিয়ার মিশন শুরু ২৩ মার্চ, সাবেক চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তানের বিপক্ষে।