ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Rate this item
(0 votes)

এক বলে সাত রান। এটা কি করে সম্ভব। অবিশ্বাস্য তো বটেই! তবে এটাই হয়েছে আইপিএলে। শুক্রবার কিংস একাদশ পঞ্জাব ও রয়েল চ্যালেঞ্জার ব্যাঙ্গুলের ম্যাচে, এমন কির্তীই ঘটান হার্সেল প্যাটেল। এমনিতেই টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট ব্যাটসম্যানদের খেলা, যেখানে বোলাররা শুধুই বেচারা। কিন্তু নিজেরে ভুলে নিজেই যদি বেচারা বনে যান! বিস্তারিত শুনুন।

টস জিতে কিংস একাদশ পাঞ্জাবকে আগে ব্যাট করতে আমন্ত্রণ জানান ব্যাঙ্গালুরের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলে পাঞ্জাব। প্রথম পাঁচ ওভারে স্কোর বোর্ডে ৪৫ রান জমা করেন দুই ওপেনার বিরেন্দ্রর শেহবাগ ও মান্দিপ সিং। এই জুটির বিচ্ছেদ ঘটাতে বল করতে আসেন হার্সেল প্যাটেল।

তখন স্ট্রাইকে রয়েছেন মান্দ্রিপ সিং। ব্যাঙ্গালুরের মিডিয়াম পেসার হার্সেল প্যাটেল ওভারের প্রথম ডেলিভারিটি লেগ সাইডে করেন। বলটিকে দেখে শুনে ছেড়েদেন ব্যাটসম্যান। বলটি উইকেট কিপার পার্থিব প্যাটেলের গ্লাভসে লেগে শর্ট লেগের দিকে ছুটে। এই সুযোগে সিঙ্গেল নিয়ে স্থান বদল করেন ব্যাটসম্যানরা। সঙ্গে আম্পায়ারও দুহাত প্রসারিত করে ওয়াইড বলের ইশারা দেন। সঠিক কোন বল হয়নি। তার আগেই দু’রান খরচা করতে হয় হার্সেলকে।

পরের বলটিকে মিডআপের উপর দিয়ে বাউন্ডারি হাঁকান রিরেন্দ্রর শেহবাগ। সঠিক বল হল একটি। রান খরচ ৬। পরের বলটিও লেগ সাইডে করেন প্যাটেল। এবারও আম্পায়ার দু’হাত প্রসারিত করেন ওয়াইড বলের ইঙ্গিত দেন। এভাবেই এক বলে সাত রানের গল্পটার ইতিঘটে। ওভারে ১৯ রান খরচ করে মান্দিপ সিংকে সাজঘরে ফেরান হার্সেল।