ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

বাংলাদেশে বসছে না আইপিএলের সপ্তম আসর Featured

Rate this item
(0 votes)

কথা ছিল ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিসিসিআইয়ের প্রস্তাব গ্রহণ করলে আসন্ন সপ্তম আইপিএলের ৪৪ থেকে ৬০টি ম্যাচ ভারতে অনুষ্ঠিত হবে, আর বাকি ১৬টি ম্যাচের আয়োজন করবে বাংলাদেশ।

কিন্তু অনেক জল্পনা-কল্পনা শেষে বুধবার ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ গভার্নিং কাউন্সিল বাংলাদেশে আইপিএল আয়োজনের বিষয়ে তাদের সম্ভাব্য পরিকল্পনা বাতিল করে দিয়ে জানিয়েছেন, চলতি বছর অনুষ্ঠিতব্য আইপিলের দ্বিতীয় দফার যে ম্যাচগুলো বাংলাদেশে হওয়ার কথা ছিল সেগুলো ভারতেই অনুষ্ঠিত হবে।

ভারতের আহমেদাবাদ, ব্যাঙ্গালোর, কোচি, কাত্তাক, হায়াদ্রাবাদ, বিশাখাপাটনাম এবং রাঁচি- এই সাতটি শহরে আইপিএলের সেই ম্যাচগুলো আয়োজন করা হবে যেগুলোর আয়োজন বাংলাদেশ করবে বলে মনে করা হচ্ছিল। আগামী ১ মে থেকে ১৩ মে পর্যন্ত এই ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে।

তবে প্রথম দফায় আইপিএলের বেশ কয়েকটি ম্যাচ পূর্বনির্ধারিত পরিকল্পনা অনুযায়ী সংযুক্ত আরব আমিরাতেই অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। সুংযক্ত আরব আমিরাতের আবু ধাবি, দুবাই এবং শারজাহ- এই তিনটি ভেন্যুতে ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে ১৬ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত। তবে আরব আমিরাতে ২০টি ম্যাচ হবে বলে পরিকল্পনা করা হলেও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দেশটিতে মোট ১৬টি ম্যাচের আয়োজন করা হবে। এই ম্যাচগুলোর পূর্ণ সময়সূচি প্রকাশ করেছে বিসিসিআই’র সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। বিসিসিআই সচিব সঞ্জয় প্যাটেল এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে সপ্তম আইপিএলের দ্বিতীয় আসরের ম্যাচগুলোর জন্য সম্ভাব্য ভেন্যু হিসেবে বাংলাদেশের কথা চিন্তা করা হলেও লজিস্টিক্যাল বিষয়গুলো মাথায় রেখে আইপিএল সংশ্লিষ্ট কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজিই বাংলাদেশের ব্যাপারে উৎসাহ দেখায়নি।

বিসিসিআই’র ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন এমন এক কর্মকর্তা বলেন, “বাংলাদেশে এই ম্যাচগুলোর আয়োজন করা হলে আমাদের পকেট ফুটো হয়ে যেত। খরচের ক্ষেত্রে বিশাল ধাক্কা খেতাম আমরা। এই কারণে আমাদের পৃষ্ঠপোষকরাও সরে দাঁড়ানোর পাঁয়তারা করছিলেন। বিষয়টি আমরা বোর্ডকে জানিয়েছি এবং সৌভাগ্যক্রমে ভারতেই এই ম্যাচগুলো আয়োজনের ব্যাপারে আর কোনো বাধা নেই।”

আগামী এপ্রিল মাস থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ভারতের লোকসভা নির্বাচন, চলবে মে মাস পর্যন্ত। ফলে আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিকরা গর্ভনিং কাউন্সিলকে জানিয়েছিল যে ওই সময়ে আইপিএলের কোনো ম্যাচ থাকলে তা নিরাপত্তার খাতিরেই দেশের বাইরে আয়োজন করা উচিত। এর আগে ২০০৯ সালে অনুষ্ঠিত লোকসভা নির্বাচনের সময়েও আইপিএলের দ্বিতীয় আসর দক্ষিণ আফ্রিকাতে আয়োজন করা হয়েছিল। সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। - See more at: http://news.zoombangla.com/sports/2014-03-20-07-49-28-4-2283#sthash.VmcqHv0d.dpuf