ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

স্বর্ণ চোরদের মুখে মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান মানায় না : ড. আকবর আলি খান

Rate this item
(0 votes)

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. আকবর আলি খান বলেছেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের সম্মাননা ক্রেস্টের স্বর্ণ যারা চুরি করে, যারা কাঠ চুরি করে, ৩৪৪ টি ক্রেস্ট তৈরি করতে গিয়ে যারা ৭ কোটি টাকা আত্মসাৎ করে, তাদের মুখে আর যাই হোক, মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের স্লোগান মানায় না।

বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনায়ক, রাজনীতিবীদ, দার্শনিক, সাহিত্যিক, বুদ্ধিজীবী, বিশিষ্ট নাগরিক ও সংগঠনকে সম্মাননা দিতে তৈরি করা ক্রেস্টে স্বর্ণ কম দিয়ে অর্থ আত্মসাতের ঘটনাকে কিভাবে দেখছেন- এমন প্রশ্নের জবাবে বিশিষ্ট এই অর্থনীতিবিদ বলেন, সংবাদটি পড়ে বাংলাদেশের একজন নাগরিক হিসেবে আমি লজ্জা পেয়েছি।

জানি না যারা এ কাজটি করেছেন তারা কতটুকু লজ্জা পেয়েছেন।

তিনি বলেন, আমি সব চেয়ে বেশি অবাক হয়েছি, মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকা একজন প্রতিমন্ত্রী এবং দুজন সচিব কিভাবে সম্মাননা ক্রেস্ট থেকে টাকা আত্মসাত করেন? তারা কি কখনো ভাবেননি যে এটা একদিন প্রকাশ পতে পারে।

সাবেক প্রতিমন্ত্রী তাজুল ইসলাম যা অর্জন করেছিলেন, তার সবটুকুই বিষর্জন দিয়েছেন। অবশ্য আমাদেরে দেশে কোনো কিছুতেই কিছু হয় না। ক্ষমতা আর অর্থের কাছে অনেক কিছুই হার মেনে যায় বলে মন্তব্য করেন ড. আকবর আলি খান।

উল্লেখ্য, স্বাধীনতার ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে অবিস্মরণীয় অবদানের জন্য বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনায়ক, রাজনীতিবিদ, দার্শনিক, শিল্পী-সাহিত্যিক, বুদ্ধিজীবী, বিশিষ্ট নাগরিক ও সংগঠনকে সম্মাননা প্রদানের লক্ষ্যে তৈরি করা প্রতিটি ক্রেস্টে ১২ আনা স্বর্ণ কম দেওয়া হয়। নির্ধারিত কাঠের স্থানে নিম্নমানের কাঠ দেওয়া হয়। এ বিষয়ে সরকারের গঠিত তদন্ত কমিটি মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী তাজুল ইসলাম, সাবেক সচিব মিজানুর রহমান ও বর্তমান সচিব কে এইচ মাসুদ সিদ্দিকসহ ১৩ জনকে অভিযুক্ত করে।

রিপোর্টে বলা হয়, সাবেক প্রতিমন্ত্রীসহ ১৩ জনে এই এই ক্রেস্টের স্বর্ণ চুরি করে ৭ কোটি সাড়ে তিন লাখ টাকা আত্মসাত করেন।