ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Sunday, 28 September 2014 23:09

এমন মন্তব্য সমীচীন নয় Featured

Rate this item
(0 votes)

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রক্রিয়াকে ত্রুটিপূর্ণ বলে মন্তব্য করায় শিক্ষামন্ত্রী নরুল ইসলাম নাহিদের সমালোচনা করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিস সিদ্দিক। হঠাৎ করে পরীক্ষা পদ্ধতি নিয়ে এমন মন্তব্য করা সমীচীন হয়নি বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

তবে তিনি বলেছেন, ‘ঢাবির শিক্ষার্থী বাছাই প্রক্রিয়ায় ত্রুটি দেখাতে পারলে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

রোববার রাত ৮টায় ফোনে বাংলামেইলকে এ কথা বলেন উপাচার্য।

প্রশ্ন উদ্দেশ্যমূলকভাবে কঠিন করা হয়েছে- শিক্ষামন্ত্রীর এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে উপাচার্য বলেন, ‘প্রশ্ন কঠিন করার একটা যৌক্তিক ভিত্তি আছে। এবার তিন লাখেরও বেশি শিক্ষার্থী আবেদন সংগ্রহ করেছে। সেখান থেকে আমাদের ভর্তি করাতে হবে মাত্র ৬ হাজার ৬৬৭ জনকে। এক্ষেত্রে প্রশ্ন একটু কঠিন হবেই।’

 

আগামী বছর থেকে সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হবে কি না জানতে চাইলে উপাচার্য বলেন, ‘সরকার যদি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নেয় সেটা পরে বিবেচনা করে দেখা যাবে।’

 

উল্লেখ্য, রোববার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালের ভর্তি প্রক্রিয়াকে ‘ত্রুটিপূর্ণ বলে মন্তব্য করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

 

তিনি বলেন, ‘যেখানে ঢাবিতে ১ লাখ ৬৬ হাজার ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছে সেখানে ইংরেজিতে মাত্র ২ জন চান্স পেল। ফেল করানোর উদ্দেশ্যেই এটা করা হয়েছে। ঢাবিতে যদি ২ জনকে নিয়ে ক্লাস নিতে পারে তাহলে নিক। এটাই যদি তাদের নৈতিকতা হয় তাহলে করতে পারে।’

 

তিনি আরো বলেন, ‘এসএসসি ও এইচএসসির সার্টিফিকেট নিয়ে গেলে হার্ভার্ডসহ বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আমাদের ছেলেমেয়েরা পড়ালেখা করতে পারে। এখন ঢাবির কারণে আমাদের শিক্ষার্থীরা সেখানে পড়তে পারবে না। উদ্দেশ্যমূলকভাবে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন কঠিন করা হয়েছে।’

 

কতিপয় শিক্ষক দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে হেয় প্রতিপন্ন করতেই জটিল প্রশ্ন করেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘আশা করি শিক্ষকরা দায়িত্বশীল হবেন।’

 

এসময় কোচিং ব্যবস্থায় ঢাবির শিক্ষকরা জড়িত বলেও অভিযোগ করেন তিনি।