ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Wednesday, 01 October 2014 12:40

ভালোবাসা পাকা করার সূত্র

Rate this item
(0 votes)

কথায় আছে, তিল থেকে তাল হয়। ভালোবাসার ক্ষেত্রেও একদিনে গভীর সম্পর্ক হওয়ার চাইতে তিল তিল করে গড়ে তোলা সম্পর্কের স্থায়িত্ব বেশি হয়। সম্পর্ক স্থায়িত্ব করতে ছোট ছোট কিছু বিষয় মেনে চলাই যথেষ্ট।

সম্পর্কের ক্ষেত্রে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কোনো বিকল্প নেই। ভালোবাসার মানুষের ক্ষেত্রে তা যেন একধাপ এগিয়ে। ভালোবাসার মানুষের প্রতি শ্রদ্ধা ও বিশ্বাস না থাকলে যে কোনো সময় সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যেতে পারে। সম্পর্কের শুরুতে অনেকেই আছেন যারা একটু বাড়িয়ে বাড়িয়ে বলতে পছন্দ করেন।

কিন্তু বাড়িয়ে বলা কথাগুলো যখন ভালোবাসার মানুষটি ধরে ফেলে তখন সম্পর্ক ভেঙে যায়। ভালোবাসার ক্ষেত্রে বাড়িয়ে না বলে যতটুকু সত্য ততটুকু বলুন।

 

সম্পর্কের ক্ষেত্রে যতটা সম্ভব সৎ থাকার চেষ্টা করুন। একবার যদি আপনার মিথ্যে ধরে ফেলতে পারে তাহলে পরবর্তীতে আপনি যতই সত্য বলুন না কেন, সে আপনাকে আর বিশ্বাস করতে চাইবে না।

 

সম্পর্কের শুরু থেকে ভালোবাসার মানুষটির পছন্দের খাবার, ফুল অর্থাৎ তার ভালোলাগা-মন্দলাগা বিষয়গুলো মনে রাখুন। মনে রাখতে না পারলে ছোট নোটবুকে লিখে রাখুন। কোনো রেস্টুরেন্টে খাবার খেলে তার ভালোলাগা খাবারগুলো অর্ডার দিন। বিশেষ দিনগুলোতে তার পছন্দের ফুল উপহার দিন। এতে আপনি তাকে কতটা ভালোবাসেন তার প্রকাশ পাবে।

 

তার সঙ্গে গম্ভীর না থেকে সহজে মেশার চেষ্টা করুন। কোমলতা প্রকাশ করুন, যাতে সে খুব সহজে তার মনের কথাগুলো আপনাকে শেয়ার করতে পারে। ধৈর্য ধরে তার মনের কথাগুলো শোনার চেষ্টা করুন। আপনার সঙ্গে দেখা হওয়া মাত্র হয়তো সে তার সঙ্গে ঘটে যাওয়া সারাদিনের কথাগুলো বলতে থাকবে। কিংবা সে কীভাবে চুলের স্টাইল করেছে কিংবা কয়টা পোশাক থেকে বেছে পোশাক নির্বাচন করেছে তার বিশদ বিবরণ দিতে থাকবে। বিরক্ত হবেন না। যতটা সম্ভব মনোযোগ দিয়ে শুনুন। খুব বেশি বিরক্ত হলে টপিকস চেঞ্জ করার চেষ্টা করুন।

 

বাইরে বের হওয়ার আগে ভালোবাসার মানুষকে তৈরি হওয়ার জন্য সময় দিন। পুরুষেরা তাড়াতাড়ি বের হতে পারলেও নারীদের বাইরে বের হতে বেশ খানিকটা সময় লাগে। তাকে দেখা মাত্র তার পোশাক ও সাজগোছের প্রসংশা করুন। মনে রাখবেন প্রতিটি মানুষ তার ভালোবাসার মানুষের কাছ থেকে প্রসংশা শুনতে পছন্দ করেন।

 

রাস্তায় হাঁটার সময় আগে পরে না হেঁটে পাশাপাশি হাঁটার চেষ্টা করুন। রাস্তা পার হওয়ার সময় তার হাত ধরে রাস্তা পার করে দিন। উঁচু নিচু রাস্তা কিংবা রাস্তায় কাদা থাকলে খেয়াল করুন সঙ্গিনীর কোনো সমস্যা হচ্ছে কিনা। অনেকেই উঁচু হিল পরেন, খেয়াল করবেন এ কারণে তার হাঁটতে সমস্যা হচ্ছে কিনা।

 

তার সঙ্গে সব সময় ফোনে, ফেসবুকে, টুইটারে যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করুন। তবে যোগাযোগ যেন মাত্রারিক্ত না হয়।