ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

জুয়েল আইচের প্রিয় ডেভিড কপারফিল্ড, মেয়ের প্রিয় জাদুকর বাবা

Rate this item
(0 votes)

জাদুশিল্পী জুয়েল আইচ। তাঁর মেয়ে খেয়া আইচ, সানবিমস স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। এবার দুই প্রজন্মে এই বাবা-মেয়ের পছন্দ-অপছন্দের কথা জানা যাক।

১. প্রিয় খাবার...
জুয়েল আইচ: শাক, সবজি, ডাল, ভাত—যেকোনো ভালো খাবারই আমার প্রিয়। ভালোর দুটো রকম আছে। কোনোটা খাওয়া ভালো, কোনোটা খেতে ভালো। আবার কিছু খাবার আছে খাওয়াও ভালো, খেতেও

ভালো। যেমন ডিম।

মেয়ে: ফল ভালো লাগে। যেমন: তরমুজ, আম। ইটালিয়ান, থাই খাবারও পছন্দ করি। এ ছাড়া মুড়ি খুব প্রিয়। মুড়ি যে আবিষ্কার করেছে, তাকে বিশেষ পুরস্কার দেওয়া উচিত।
২. কোন ধরনের গান ভালো লাগে?

জুয়েল আইচ: রবীন্দ্রসংগীত, নজরুলসংগীত, আধুনিক গান, ফোক গান, ব্যান্ডের গানসহ সব ধরনের গানই ভালো লাগে। তবে গানের বাণী পছন্দ হতে হবে। সেই সঙ্গে গানটি অবশ্যই সুরেলা হতে হবে। কণ্ঠসংগীত ও যন্ত্রসংগীত (ইনস্ট্রুমেন্টাল) দুই ক্ষেত্রেই শাস্ত্রীয় ধারা আমাকে মুগ্ধ করে।

মেয়ে: পপগান বেশি প্রিয়। মাইকেল জ্যাকসন ভালো লাগে। এ ছাড়া ওয়ান ডিরেকশন ব্যান্ডের গানও আমার প্রিয়।

৩. যখন অবসর...

জুয়েল আইচ: শুধু অবসর আমি কখনো কাটাই না। হয়তো বই পড়ছি, টিভি দেখছি। এসব থেকে বিনোদন যেমন পাচ্ছি, তেমনি কিছু শেখার-বোঝারও চেষ্টা করছি। ইদানীং আমি ফেসবুক ব্যবহার করতেও শুরু করেছি।

মেয়ে: টিভি দেখি। ফেসবুক, ইউটিউবে যাই।মা-বাবার সঙ্গে আড্ডা দিই। বন্ধুদের সঙ্গে ফোনে গল্প করি।

৪. প্রিয় সিনেমা...

জুয়েল আইচ: উত্তম কুমার আর সুচিত্রা সেনের নেশা ধরানো কিছু সিনেমা আছে। যেমন: সবার ওপরে, হারানো সুর। উত্তম-সুচিত্রা জুটির সবগুলো ছবিই প্রিয়। এ ছাড়া ঋত্বিক ঘটকের মেঘে ঢাকা তারা, সত্যজিৎ রায়ের পথের পাঁচালীও খুব প্রিয়।

মেয়ে: কমেডি, অ্যাকশনধর্মী ছবিগুলো বেশি ভালো লাগে। সম্প্রতি নাউ ইউ সি মি সিনেমাটি দারুণ লেগেছে।

৫. প্রিয় জাদুশিল্পী...

জুয়েল আইচ: প্রিয় জাদুশিল্পীর কথা বলতে গেলে প্রথমেই বলব ডেভিড কপারফিল্ড। শুধু জাদুশিল্পী নন, মানুষ এবং বন্ধু হিসেবেও তিনি অসাধারণ। দেশে আবদুর রশিদ সাহেব ছিলেন, তাঁর জাদু ভালো লাগত। এ ছাড়া দেশে-বিদেশে আমার অনেক জাদুশিল্পী বন্ধু আছেন, তাঁদের জাদুও ভালো লাগে।

মেয়ে: প্রথমত বাবা, দ্বিতীয়ত ডেভিড কপারফিল্ড।