ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

আঁশযুক্ত খাবারে বিপত্তি?

Rate this item
(0 votes)

ওজন কমাতে, রক্তে শর্করা ও চর্বি কমাতে এবং বৃহদন্ত্রের ক্যানসারসহ নানা রোগ প্রতিরোধে চিকিৎসক বেশি করে আঁশযুক্ত খাবার খেতে পরামর্শ দেন। কিন্তু পরামর্শ মানতে অনেক সময় দেখা দেয় বিপত্তি। প্রচুর গ্যাস হয় পেটে, যখন-তখন যেখানে-সেখানে গ্যাস বেরিয়ে আসে, ঢেকুর ওঠে বা বিব্রত হতে হয়। তাহলে কী করা?আঁশ বা ফাইবার হলো খাবারের সেই অংশ, যাকে হজম করার জন্য মানুষের দেহে কোনো উৎসেচক বা এনজাইম নেই। তার মানে এই আঁশ হজম না হয়ে আপনার পেট থেকে বেরিয়ে যাবে এবং মলের পরিমাণ বাড়াতে ও কোষ্ঠ পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করবে। কিন্তু আমাদের

অন্ত্রে রয়েছে অনেক ব্যাকটেরিয়া বা জীবাণু, যারা কিছুটা হলেও এই আঁশ হজম করে ফেলে এবং হাইড্রোজেন, কার্বন ডাই-অক্সাইড ইত্যাদি গ্যাস প্রচুর পরিমাণে তৈরি করে। এ কারণেই আঁশ খেলে অনেকের গ্যাস হয়। এজন্য বিজ্ঞানীদের পরামর্শ হচ্ছে:
যদি আপনার কাঁচা ফলমূল, শাকসবজি বা গোটা শস্য খাবারে তেমন অভ্যাস না থাকে, তবে ধীরে ধীরে শুরু করুন। একসঙ্গে অনেক আঁশযুক্ত খাবার খাবেন না। কয়েক সপ্তাহ ধরে পরিমাণ বাড়ান। যে খাবারে বেশি গ্যাস হয়, সেটা তালিকা থেকে বাদ দিন। আঁশযুক্ত খাবার বেরিয়ে যাওয়ার জন্য ও নরম করার জন্য প্রচুর পরিমাণ পানি পান করুন।