ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

বাধা নেই ৮ বছরের মেয়েশিশুকে বিয়ে করতে

Rate this item
(0 votes)

আট বছরের মেয়েশিশুর বিবাহ বৈধ করা হয়েছে। আর কোন বাধা নেই আট বছরের মেয়েশিশুকে বিবাহ করতে। একটি আইনে বলা হয়েছে আট বছরের মেয়েশিশুকে তালাক দেওয়া যাবে। অর্থাৎ তালাক দেওয়া গেলে তার বিবাহও বৈধ করা হয়েছে। এতে পরোক্ষভাবে আট বছরের মেয়েশিশুকে বিবাহতে বাধ্য করা হবে।

ইরাকে বর্তমানে সর্বনিম্ন ১৫ বছর বয়সের মেয়েকে বিয়েতে আইনত বাধ্য করতে পারেন অভিভাবকরা। সেক্ষেত্রে ৮ বছর বয়সে তালাকের প্রসঙ্গও আসা অসম্ভব।

জানা যায়- ইরাকের শিয়া অধ্যুষিত অঞ্চলগুলোতে শয্যাসঙ্গিনী হতে না চাওয়ায় তালাক দেওয়া সামাজিকভাবে একটি সাধারণ ঘটনা। এর বিরুদ্ধে কোনো আইনি নিরাপত্তা নেই। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বলা যায় আট বছরের মেয়েশিশুকে বিবাহ নয়, শয্যাসঙ্গিনী হতেও বাধ্য করতে পারে নতুন এ আইনে।

ইরাকসহ বিভিন্ন দেশের নারী অধিকার সংগঠনগুলো বলেছেন, ভুল যুক্তি উপস্থাপন করে এমন আইন প্রস্তাব করে নারীদের অস্তিত্বকে আরো হুমকির মুখে ঠেলে দিতে যাচ্ছে সরকার।

ইরাকের মানবাধিকার কর্মী হানা আদওয়ার বলেন, এ আইন মানবতার সুস্পষ্ট লঙ্ঘন ও শিশু অধিকারের চরম পরিপন্থি হয়ে দাঁড়াবে। এমন অপরিণত বয়েসে বিয়ের কারণে শিশুরা মারাত্মক স্বাস্থ্যগত ও মানসিক বৈকল্যের শিকার হবে।

বলা হচ্ছে- দেশটির শিয়া প্রধানমন্ত্রী নুরি আল মালিকির সহযোগিতায় এ আইন অনুমোদিত হয়েছে, আগামী নির্বাচনে তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হওয়ার আশায় তিনি এমন আইন অনুমোদন করছেন। আগামী জাতীয় নির্বাচন হবে ৩০ এপ্রিলে।