ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Friday, 28 February 2014 17:52

লিখছি বংশবীর, পড়ছি লাতিন সাহিত্য

Rate this item
(0 votes)

মূলত নিয়মিত পাঠ একজন লেখককে বাঁচিয়ে রাখে, এই বাঁচা শুধু লেখার মধ্যে বেঁচে থাকা নয়, পাঠ জীবন ধারণে অপরিহার্য। আপাতত পড়ছি কোনো নির্দিষ্ট টেক্সট নয়, একেবারে সময়-কাল ধরে ধরে। আর এই পাঠ পর্বে বেছে নিয়েছি লাতিন আমেরিকার সাহিত্য। গল্প, কবিতা, গাথা, ইতিহাস নানাভাবে খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে পড়ছি। লাতিন লিটারেচারের পূর্ব ও পরবর্তী সাহিত্যের উত্থান ইতিহাসগুলো পড়ছি। বিশেষ করে লাতিন আমেরিকার সাহিত্যের স্তম্ভ কিভাবে গড়ে উঠেছে, কোন কোন মহান শিল্পীর হাতে তা লালিত-পালিত হয়েছে এসব বিষয়। কলম্বাসের আমেরিকা আবিষ্কার, লাতিন আমেরিকার আদিবাসী সাহিত্যের ওপর আদ্যোপান্ত চোখ রাখছি। বিশেষ করে উপনিবেশ আমলের আগে ও পরে দুই ধরনের সাহিত্যসম্ভার বিদ্যমান, সেগুলো বুঁদ হয়ে পড়ছি। যেমন আজই পড়ছিলাম আর্জেন্টাইন লেখক লুই বোর্হেসের ফিলোসফিক্যাল রচনাগুলো। পড়তে পড়তে বুঝেছি বোর্হেসকে কেন লাতিন প্রফেট বলা হয়। পাশাপাশি পড়ছি আফ্রিকার সাহিত্য, ইতিহাস।


কিছু না কিছু আমাকে লিখতেই হয়। না লিখলে বাঁচার অধিকার যেন হারিয়ে ফেলি। অতি সাম্প্রতিক সময়ে কবিতা লিখছি, প্রবন্ধ লিখছি। আফ্রিকার সাহিত্য ও লাতিন আমেরিকার সাহিত্য নিয়ে লেখার চেষ্টা করছি প্রবন্ধ। তবে মূলত কবিতা লিখছি মগ্ন হয়ে। কিছুদিন আগে বাবা মারা গেলেন আমার। পিতৃবিয়োগের কারণে নতুন করে আমার ভেতর সংযোগ হয়েছে কিছু শব্দ বাক্য ভাব। বাবাকে নিয়ে একটি দীর্ঘ কবিতায় হাত দিয়েছি। কবিতাটির শিরোনাম 'বংশবীর'। খণ্ড খণ্ড আকারে কবিতাগুলো লিখছি, তবে মূলত এটি একটি অখণ্ড ভাবধারাকে কেন্দ্র করে এগোচ্ছে। এবার আমার সারা জীবনের যে কবিতা, সে কবিতার যে প্রকরণ, শৈলী সেখান থেকে বেরিয়ে এসে একটু ভিন্নতর আঙ্গিকে কবিতাগুলো লিখছি।
এ ছাড়া আরো একটি দীর্ঘ কবিতা লিখছি। বিষয়টি একটু বৈজ্ঞানিক।