ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

ইসরাইলের বিরুদ্ধে প্রস্তাব নেওয়ার প্রশ্নই উঠছে না: মোদি

Rate this item
(0 votes)

নয়াদিল্লি, ২২ জুলাই- গাজা বিতর্কে ইসরাইলের বিরুদ্ধে কোনও নিন্দা প্রস্তাব আনা হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে নরেন্দ্র মোদি সরকার। গতকাল সোমবার রাজ্যসভায় এ ঘোষণা দেয়ার পর প্রতিবাদে কক্ষত্যাগ করেন কংগ্রেস এবং বাম-সহ বিরোধী সাংসদেরা।

ফিলিস্তিনের গাজায় ইসরাইলের অভিযানের বিরুদ্ধে সরব কংগ্রেস, বাম-সহ বিভিন্ন বিরোধী পক্ষ। রাজ্যসভায় এ নিয়ে বিতর্কের জন্য কেন্দ্রকে চাপ দিচ্ছিল ওই দলগুলো। প্রথমে রাজি না হলেও পরে রাজ্যসভায় গাজা পরিস্থিতি নিয়ে বিতর্কে সায় দেয় কেন্দ্র।

বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ আজ বলেন, ‘ফিলিস্তিনের প্রতি আমাদের সমর্থন রয়েছে। কিন্তু তার পাশাপাশি আমরা ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যাব। আগের সরকারও এই বিদেশনীতি নিয়েই চলেছে।’

এই বিষয়ে কোনও প্রস্তাব আনার দাবিটিও কার্যত উড়িয়ে দেন তিনি। সুষমা জানান, যে সংসদীয় ধারায় এই আলোচনা হচ্ছে, সেখানে কোনও প্রস্তাব আনা অথবা ভোটাভুটির কোনও আইন নেই। তার প্রয়োজনও নেই। গোটা বিশ্বই হিংসামুক্ত হোক, এই বার্তাই সংসদ থেকে দেওয়া হচ্ছে।

মোদি সরকারের ব্যাখ্যা, ইসরাইলের বিরুদ্ধে দিল্লি নিন্দা প্রস্তাব আনবে কি না তা ফিলিস্তিনের সঙ্গে ভারতের সম্পর্কের উপর নির্ভরশীল নয়। তা নির্ভর করছে ওই অবস্থান নিলে ভারতের লাভ -ক্ষতির উপর। এই পরিস্থিতিতে ইসরাইলের বিরুদ্ধে প্রস্তাব নেওয়ার প্রশ্নই উঠছে না।

সিপিএমের সীতারাম ইয়েচুরি অবিলম্বে এই ঘটনার নিন্দা করে সংসদীয় প্রস্তাব নিতে কেন্দ্রকে অনুরোধ করেন। পাশাপাশি ইসরাইলের কাছ থেকে অস্ত্র কেনা বন্ধ করারও দাবি তোলেন তিনি।

শারদ যাদবের দাবি, সাম্প্রদায়িক কারণেই কেন্দ্র ইসরাইলের পাশে আছে।

সুষমা জানান, সাম্প্রদায়িকতার ভিত্তিতে মোদি সরকার কোনও সিদ্ধান্ত নেয় না এটা ইতিমধ্যেই প্রমাণিত হয়েছে। সৌদি আরবে অন্যায়ভাবে আটক ১৭ জন সংখ্যালঘুকে ছাড়িয়ে আনা হয়েছে। ইরাকে বন্দি থাকা কেরলের খ্রিষ্টান নার্সদেরও আপৎকালীন ভিত্তিতে ফিরিয়ে এনেছে সরকার।

সীতারাম ইয়েচুরির উদ্দেশে বিদেশমন্ত্রী সুষমা বলেন, ‘২০০৮ সালে সংঘর্ষে এক হাজার ৪০০ ফিলিস্তিনির মৃত্যু হয়। তখন বামেরা সরকারের সহযোগী দল ছিল। তখন কেন আপনারা মনমোহন সরকারকে সংসদীয় প্রস্তাব আনার পরামর্শ দেননি?’