ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Friday, 28 February 2014 19:13

প্যানজিয়া

Rate this item
(0 votes)

পৃথিবীপৃষ্ঠের প্রায় ৭১ শতাংশই দখল করে রেখেছে পানি। যার আবার প্রায় সম্পূর্ণটা পাঁচটি মহাসাগরের দখলে। এ মহাসাগরগুলো হলো উত্তর মহাসাগর, প্রশান্ত মহাসাগর, আটলান্টিক মহাসাগর, ভারত মহাসাগর এবং দক্ষিণ মহাসাগর। বাকি ২৯ শতাংশ এলাকা বিভক্ত সাতটি মহাদেশে। বিভিন্ন সাগর এবং পাঁচটি মহাসাগরই মহাদেশগুলোকে বিভক্ত করেছে।

সাতটি মহাদেশ হলো এশিয়া, আফ্রিকা, উত্তর আমেরিকা, দক্ষিণ আমেরিকা, অ্যান্টার্কটিকা, ইউরোপ এবং অস্ট্রেলিয়া। তবে বরাবরই কিন্তু পৃথিবীতে এই সাতটি মহাদেশ ছিল না। বিভিন্ন সময়ে পৃথিবীতে এমন সময়ও কয়েকবার এসেছে যখন মহাদেশ ছিল একটিই। অর্থাৎ পৃথিবীপৃষ্ঠের সব ভূমি ছিল একত্রে। বিশাল এই মহাদেশকে চারপাশ থেকে ঘিরেও রেখেছিল একটিই মাত্র মহাসাগর। আজ থেকে প্রায় ৩০ কোটি বছর আগে পৃথিবীর সব স্থলভাগ এক হয়ে বিশাল যে মহাদেশ গঠিত হয়েছিল বিজ্ঞানীরা সে মহাদেশের নাম দেন প্যানজিয়া। প্যানজিয়াকে ঘিরে রেখেছিল যে মহাসাগরটি সেটির নাম দেওয়া হয় প্যানথালাসা। পৃথিবীর সুদীর্ঘ ইতিহাসে প্যানজিয়াই এ রকম বিশাল মহাদেশের একমাত্র বা প্রথম উদাহরণ নয়। ধারণা করা হয়, প্যানজিয়া সৃষ্টির প্রায় ৮০ কোটি বছর আগে এ রকম বিশাল আরেকটি মহাদেশ তৈরি হয়েছিল। রোডিনিয়া নামের ওই মহাদেশটির স্থায়িত্বকাল ছিল আনুমানিক ৩৫ কোটি বছর। এরপর তা তিনটি অংশে বিভক্ত হয়ে যায়। পৃথিবীর স্থলভাগের এভাবে পৃথক হয়ে যাওয়া ও আবার জোড়া লাগা একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া; কারণ মহাদেশগুলো বা স্থলভাগগুলো যেসব টেকটনিক প্লেটের ওপর অবস্থিত সেগুলো চলমান। আর প্লেটগুলোর অবস্থান পরিবর্তনের কারণেই মূলত স্থলভাগগুলো কখনো একে অন্যের কাছে চলে আসে আবার কখনো দূরে সরে যেতে থাকে। ২০ কোটি বছর আগে প্যানজিয়া ভাঙতে শুরু করে। মূলত তিনটি ধাপে এটি সম্পূর্ণ ভেঙে যায়। বিজ্ঞানীরা ধারণা করেন, ৫ থেকে ১০ কোটি বছর পর পৃথিবীতে আবারও জন্ম নেবে এ রকম বিশাল একটি মহাদেশ।