Print this page
Thursday, 27 February 2014 20:32

সমঝোতাকে স্বাগত জানিয়েছেন ওবামা

Rate this item
(0 votes)

সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র ধ্বংস বা দেশটি থেকে অন্য কোথাও সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে রুশ-মার্কিন সমঝোতাকে স্বাগত জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।
গতকাল শনিবার জেনেভা আলোচনায় রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্রের ব্যাপারে মতৈক্যে পৌঁছেছে।
সমঝোতা অনুযায়ী, সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র ২০১৪ সালের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে ধ্বংস করতে হবে বা দেশটি থেকে অন্য কোথাও সরিয়ে নিতে হবে। সিরিয়া সরকার এটা না মানলে অবরোধ বা সামরিক

শক্তিপ্রয়োগের হুমকিসংবলিত জাতিসংঘ প্রস্তাবের মাধ্যমে তা কার্যকর করা হবে।
মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি ও রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ সিরিয়া-সংকট নিয়ে সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় গতকাল টানা তৃতীয় দিনের মতো বৈঠক করেন। এরপর এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে মতৈক্যে পৌঁছার কথা জানান কেরি। এ সময় সিরিয়াকে নিরস্ত্র করার রূপরেখায় ছয়টি দফা উল্লেখ করেন তিনি।
বিবিসি অনলাইনে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানানো হয়, হোয়াইট হাউস থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে রুশ-মার্কিন সমঝোতাকে স্বাগত জানিয়েছেন ওবামা। তিনি বলেছেন, সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র ধ্বংসে তা আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার লক্ষ্যে রুশ-মার্কিন সমঝোতা একটি গুরুত্বপূর্ণ ও সুস্পষ্ট পদক্ষেপ।

তবে ওবামা সতর্ক করে বলেছেন, সমঝোতা অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ কাজ করতে ব্যর্থ হলে সিরিয়ায় সামরিক পদক্ষেপ নেবে যুক্তরাষ্ট্র।

 

ওবামার এই অবস্থানকে সমর্থন করে গতকাল পেন্টাগন জানিয়েছে, সিরিয়ায় সামরিক পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য মার্কিন সেনারা প্রস্তুত রয়েছে।

 

এদিকে রুশ-মার্কিন সমঝোতাকে চীনও স্বাগত জানিয়েছে।

 

তবে সিরিয়ার বিদ্রোহীরা এই সমঝোতাকে প্রত্যাখ্যান করেছে। তারা বলছে, এতে সংকটের সমাধান হবে না; বরং অপরাধ করার পরও এই চুক্তি আসাদকে শাস্তি পাওয়া থেকে রেহাই দেবে।

 

জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন গত শুক্রবার বলেন, সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে। জাতিসংঘের অস্ত্র পরিদর্শক দলের তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলে বিষয়টি স্পষ্ট হবে। পরিদর্শকদের কাল সোমবার ওই প্রতিবেদন বান কি মুনের কাছে জমা দেওয়ার কথা।

 

 

 

Last modified on Monday, 10 March 2014 00:25