ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

রাজনীতির কারণে নাচ ছেড়েছি: মৌ

Rate this item
(0 votes)

অভিনয়শিল্পী তাহমিনা সুলতানা মৌ। একসময় নাচের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলেন। কিন্তু সংকীর্ণতা আর নাচ নিয়ে রাজনীতির কারণেই নাচ ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।‘প্রথম আলো’কে মৌ বলেন, ‘ছোটবেলা থেকেই নৃত্যশিল্পী হওয়ার ইচ্ছে ছিল। আর তাই শিবলী মহম্মদ ও শামীম আরা নীপার কাছে নাচের তালিমও নিয়েছিলাম। একটা পর্যায়ে এসে কেন জানি নাচ নিয়ে আগ্রহ হারিয়ে ফেলি।’ছোটবেলা থেকে যাঁর নাচ নিয়ে এত স্বপ্ন, সেই স্বপ্ন শেষ হওয়ার কারণ কী, জানতে চাইলে মৌ বলেন, ‘নাচ নিয়ে অনেকটা সময় পার করার পর উপলব্ধি করতে থাকি, এর মধ্যে নোংরা রাজনীতি ঢুকে গেছে। জ্যেষ্ঠ নৃত্যশিল্পীরা নতুনদের জায়গা ছেড়ে দিতে চান না। তাঁরা একই নাচ এবং কোরিওগ্রাফি

নিয়েই ব্যস্ত। বলতে পারেন আধুনিকতার সঙ্গে তাঁদের কোনো যোগাযোগ নেই। এতে করে নতুন নৃত্যশিল্পীরা অনেক ভালো করা সত্ত্বেও তাঁদের ভাবনার যথাযথ বাস্তবায়ন করতে কোনোভাবেই সুযোগ পান না। আজীবন তাঁদের ব্যাক-আপ ড্যান্সার হয়ে থাকতে হয়। এ কারণে একটা সময় নাচ ছাড়তে বাধ্য হয়েছি। আমাদের সঙ্গের অনেকে তো নাচের অনিয়মের কারণে দেশ পর্যন্ত ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন।’
রাজনীতিতে টিকে থাকতে না পেরে অনেকে এককভাবে নিজের আলাদা ক্যারিয়ার নিয়ে ভেবেছেন। আর তাতে তাঁরা সফলও হয়েছেন বলে জানান মৌ। বললেন, ‘জ্যেষ্ঠ নৃত্যশিল্পীদের রাজনীতিতে টিকে থাকতে না পেরে যাঁরা এককভাবে নাচ নিয়ে চিন্তাভাবনা করেছেন, তাঁরা সবাই অনেক ভালো করেছেন। নাচ নিয়ে তাঁদের কর্মকাণ্ড দারুণ প্রশংসিতও হয়েছে।’
বাংলা চলচ্চিত্রের এক সময়ের জনপ্রিয় নায়িকা শাবনাজের ছোট বোন অভিনয়শিল্পী তাহমিনা সুলতানা মৌ। তাঁদের বাবা এস এম হুমায়ূন নাট্যচক্রের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। ১৯৯৯ সালে মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর নাটকের মাধ্যমে অভিনয়ে নাম লেখান। এরপর টানা অভিনয়ের মধ্যেই আছেন। অভিনয়ের ফাঁকে বিজ্ঞাপনচিত্রেও কাজ করেছেন।