ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Wednesday, 05 March 2014 14:19

চার বছরের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘোষণা

Rate this item
(0 votes)

২০০৪ থেকে ২০০৭ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘোষণা করেছে সরকার।

২০০৪ সালে 'জয়যাত্রা', পরের বছর 'হাজার বছর ধরে', ২০০৬ এ 'ঘানি' এবং ২০০৭ সালে 'দারুচিনি দ্বীপ' সেরা চলচ্চিত্রের পুরস্কার জিতেছে।

তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে ১১ সদস্যের জুরি বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী এ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে বলে বৃহস্পতিবার সরকারি তথ্য বিবরণীতে জানানো হয়।



২০০৪ সালে ১৫টি ক্যাটাগরিতে ১৫টি, ২০০৫ সালে ১৩টি ক্যাটাগরিতে ১৩টি, ২০০৬ সালে ১৫টি ক্যাটাগরিতে ১৬টি এবং ২০০৭ সালে ১৪টি ক্যাটাগরিতে ১৪টি পুরস্কার দেওয়া হয়েছে বলেও জানানো হয় তথ্য বিবরণীতে।

২০০৪ এ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিজয়ীরা হলেন- চলচ্চিত্র পরিচালক তৌকীর আহমেদ (চলচ্চিত্র: জয়যাত্রা), সঙ্গীত পরিচালক সুজেয় শ্যাম (চলচ্চিত্র: জয়যাত্রা), অভিনেতা হুমায়ুন ফরিদী (চলচ্চিত্র: মাতৃত্ব), পার্শ্ব অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু (চলচ্চিত্র: শঙ্খনদ), অভিনেত্রী অপি করিম (চলচ্চিত্র: ব্যাচেলর) ও পার্শ্ব অভিনেত্রী মেহবুবা মাহনূর চাঁদনী (চলচ্চিত্র: জয়যাত্রা)।

এছাড়া সেরা কাহিনীকারের পুরস্কার জিতেছেন আমজাদ হোসেন (চলচ্চিত্র: জয়যাত্রা), চিত্রনাট্যকার তৌকির আহমেদ (চলচ্চিত্র: জয়যাত্রা), কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী (চলচ্চিত্র: মেঘের পরে মেঘ), চিত্রগ্রাহক (রঙ্গিন) রফিকুল বারী চৌধুরী (মরণোত্তর) (চলচ্চিত্র: জয়যাত্রা), সম্পাদক জুনায়েদ হালিম (চলচ্চিত্র: শঙ্খনাদ), শিল্প নির্দেশক উত্তম গুহ (চলচ্চিত্র: লালন), শিশুশিল্পী অমল (চলচ্চিত্র: দূরত্ব) ও সেরা মেকাপম্যানের পুরস্কার পেয়েছেন ম. ম. জসীম (চলচ্চিত্র এক খণ্ড জমি)।

২০০৫ সালে সেরা চলচ্চিত্র পরিচালক হয়েছেন কোহিনূর আখতার সুচন্দা (চলচ্চিত্র: হাজার বছর ধরে), সঙ্গীত পরিচালকের পুরস্কার পেয়েছেন আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল (চলচ্চিত্র: হাজার বছর ধরে), প্রধান অভিনেতা মাহফুজ আহমেদ (চলচ্চিত্র: লাল সবুজ), পার্শ্ব অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন (চলচ্চিত্র: শাস্তি), প্রধান অভিনেত্রী শাবনুর (চলচ্চিত্র: দুই নয়নের আলো), পার্শ্ব অভিনেত্রী গুলশান আরা আখতার (চম্পা) (চলচ্চিত্র: শাস্তি) এবং শ্রেষ্ঠ কাহিনীকারের পুরস্কার পেয়েছেন জহির রায়হান (মরণোত্তর) (চলচ্চিত্র: হাজার বছর ধরে)।

গায়ক মনির খান (চলচ্চিত্র: দুই নয়নের আলো), গায়িকা সাবিনা ইয়াসমিন (চলচ্চিত্র: দুই নয়নের আলো), চিত্রগ্রাহক (রঙ্গিন) মাহফুজুর রহমান (চলচ্চিত্র: হাজার বছর ধরে), শিল্প নির্দেশক মোহাম্মদ কলমতর (চলচ্চিত্র: হাজার বছর ধরে) এবং শিশুশিল্পী হৃদয় ইসলামও (চলচ্চিত্র: টাকা) একই বছরের পুরস্কার জিতেছেন।

২০০৬ সালে পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন, পরিচালক কাজী মোরশেদ (চলচ্চিত্র: ঘানি), সঙ্গীত পরিচালক শেখ শাদী খান (চলচ্চিত্র: ঘানি), প্রধান অভিনেতা আরমান পারভেজ মুরাদ (চলচ্চিত্র: ঘানি), পার্শ্ব অভিনেতা মাসুম আজিজ ও রাইসুল ইসলাম আসাদ (চলচ্চিত্র ঘানি), প্রধান অভিনেত্রী নাজনীন হাসান চুমকী (চলচ্চিত্র ঘানি), পার্শ্ব অভিনেত্রী ডলি জহুর (চলচ্চিত্র ঘানি)।

অন্য পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন, কাহিনীকার কাজী মোরশেদ (চলচ্চিত্র; ঘানি), চিত্রনাট্যকার কাজী মোরশেদ (চলচ্চিত্র: ঘানি), সংলাপ রচয়িতা কাজী মোরশেদ (চলচ্চিত্র: ঘানি), গায়ক আসিফ আকবর (চলচ্চিত্র: রানীকুঠির বাকি ইতিহাস), কণ্ঠশিল্পী সামিনা চৌধুরী (চলচ্চিত্র: রানীকুঠির বাকি ইতিহাস), চিত্র গ্রাহক (রঙ্গিন) হাসান আহমেদ (চলচ্চিত্র: ঘানি), সম্পাদক সাইফুল ইসলাম (চলচ্চিত্র: ঘানি) এবং শিশুশিল্পী দিঘী (চলচ্চিত্র: কাবলিওয়ালা)।

গতবছর চলচ্চিত্র পরিচালক এনামুল করিম নির্ঝর (চলচ্চিত্র: আহা), সঙ্গীত পরিচালক এস আই টুটুল (চলচ্চিত্র: দারুচিনি দ্বীপ), নৃত্য পরিচালক কবিরুল ইসলাম রতন (চলচ্চিত্র: দারুচিনি দ্বীপ), অভিনেতা রিয়াজ আহমেদ (চলচ্চিত্র: দারুচিনি দ্বীপ), পার্শ্ব অভিনেতা আবুল হায়াত (চলচ্চিত্র: দারুচিনি দ্বীপ), অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম (চলচ্চিত্র: দারুচিনি দ্বীপ), পার্শ্ব অভিনেত্রী নিপুণ (চলচ্চিত্র: সাজঘর) পুরস্কার পেয়েছেন।

এছাড়া, চিত্রনাট্যকার হুমায়ুন আহমেদ (চলচ্চিত্র: দারুচিনি দ্বীপ), কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর (চলচ্চিত্র সাজঘর) ও ফাহমিদা নবী (চলচ্চিত্র: আহা), গীতিকার মুন্সী ওয়াদুদ (চলচ্চিত্র: সাজঘর), চিত্র গ্রাহক (রঙ্গিন) সাইফুল ইসলাম বাদল (চলচ্চিত্র: আহা) এবং সম্পাদক অর্ঘ কমল মিত্রও (চলচ্চিত্র: আহা) একই বছর পুরস্কৃত হয়েছেন।

Last modified on Sunday, 09 March 2014 16:13