ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম কমে আসবে:জিল্লুর

Rate this item
(0 votes)

নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম ক্রমান্বয়ে কমে আসবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমান।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে 'নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রীর মূল্য পর্যবেণ ও পর্যালোচনা'র জন্য গঠিত উচ্চ পর্যায়ের মনিটরিং কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

উপদেষ্টা বলেন, "আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) বলেছে আন্তর্জাতিক বাজারে খাদ্যপণ্যের দাম কমতে শুরু করেছে। এছাড়া গমের দাম বিশ্ববাজারে ইতোমধ্যে কমেছে। আমরা আশা করছি আমাদের

স্থানীয় বাজারেও এর ইতিবাচক প্রভাব পড়বে এবং ক্রমান্বয়ে পণ্যের দাম কমে আসবে।"

দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে আনতে বাজার গোয়েন্দাগিরিসহ মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করা হবে বলেও জানান বাণিজ্য উপদেষ্টা।

তিনি আরো বলেন, "এখনও আন্তর্জাতিক বাজারের চেয়ে আমাদের স্থানীয় বাজারে পণ্যের দাম অনেক কম। আন্তর্জাতিক বাজারে এখন প্রতিকেজি চালের দাম ৭০ টাকা কিন্তু আমাদের বাজারে এ দাম অনেক কম।"

বাজার নিয়ন্ত্রণের চেয়ে রাজনৈতিক কর্মকান্ডের দিকে বেশি মনোযোগ দিচ্ছেন কিনা জানতে চাইলে জিল্লুর রহমান বলেন, "এ ধরনের অভিযোগের উত্তর দেওয়া আমার দায়িত্ব নয়। জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আমরা কাজ করছি। সেটার মধ্যে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের বিষয়ও একটি। অন্যদিকে যেকোন ভাল কিছুর জন্য দায়িত্বপালন করাও আমার কর্তব্য মনে করি।"

বোরোর মত আগামী আমন ধানের ফলন ভালো হবে- এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি বলেন,"এবার ১৭ মিলিয়ন মেট্রিক টন বোরো ধান উৎপন্ন হয়েছে। বোরোর মত আমনেরও বাম্পার ফলন হলে বাজারে অবশ্যই এর ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। আমনের ফলন বাড়ানোর জন্য এখন আমরা (সরকার) সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।"

বাণিজ্য উপদেষ্টা বলেন, "বর্তমানে নয় লাখ মেট্রিক টন খাদ্য মজুদ রয়েছে। ভারত থেকে দেড় লাখ টন চাল ইতোমধ্যে এসেছে। আরো দেড় লাখ টন চাল খুব শিগগিরই আসবে। আমরা চাল রপ্তানি বন্ধ করেছি। চালের সংকটের কোন কারণ নেই।"

আমনের ফলন ভালো হলে চালের দাম কমে আসবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য সচিব ফিরোজ আহমেদ, বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের মহাপরিচালক কাজী শাহাবুদ্দিন, খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক পিউস কস্তা, ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক ড. মাহবুব হোসেন, বাংলাদেশ রাইফেলসের (বিডিআর) ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক আব্দুল বারি, বিডিআরের 'অপারেশন ডাল ভাত' কর্মসূচির সমন্বয়কারী কর্ণেল এম এ হালিমসহ বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি (এফবিসিসিআই) এবং পাইকারী ও খুচরা ব্যবসায়ীদের প্রতিনিধিরা।

Last modified on Monday, 10 March 2014 15:48