ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

চলছে বাণিজ্য মেলার প্রস্তুতি

Rate this item
(0 votes)

জানুয়ারিতে মাসব্যাপী বাণিজ্য মেলা আয়োজনের লক্ষ্য নিয়ে জোর প্রস্তুতি চলছে। এবার মেলা জমজমাট হবে বলে আশা করছে আয়োজনকারী কর্তৃপক্ষ।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) আয়োজনে প্রতিবছর মাসজুড়ে শেরেবাংলা নগরে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এবার এ মেলার ষষ্ঠদশ আয়োজন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও ইপিবি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দরপত্রের মাধ্যমে স্পেশাল প্যাভেলিয়ন, প্রিমিয়ার প্যাভেলিয়ন, প্রিমিয়ার মিনি প্যাভেলিয়ন, প্রিমিয়ার স্টল ৩৫টি ও রেস্তোরাঁ বরাদ্দ দেওয়ার কাজ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে।

ইপিবির ভাইস-চেয়ারম্যান জালাল আহমেদ ঈদের আগে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, "মেলা আয়োজনের কাজ পুরোদমে চলছে। আশা করি, সঠিক সময়ে মেলায় কাজ সম্পন্ন হবে।"

"গত বছরের তুলনায় এবার মেলা আরো জমজমাট হবে। দর্শকও বেশি আসবে বলে আমরা আশা করছি", বলেন তিনি।

দর্শকদের সুবিধা ও সৌন্দর্যের বিষয় বিবেচনায় এবার আয়োজনে কিছু নতুনত্ব আনার কথাও জানান জালাল।

তিনি বলেন, "এবারে আমরা মেলাকে বিভিন্ন ভাগে ভাগ করে দিবো। এক-একটি ভাগে একই ধরনের পণ্য পাওয়া যাবে।"

এছাড়া মেলায় শিশুকুঞ্জ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যেখানে শিশুদের রেখে অভিভাবকরা মেলায় ঘুরতে যেতে পারবেন।

বাণিজ্য মেলা ঘিরে ব্যবসায়ীদের প্রত্যাশাও কম নয়।

বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সভাপতি একে আজাদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, প্রতিবছরই বাণিজ্য মেলা কলেবর বাড়ছে। এ বছর আরো বাড়বে বলে আমরা আশা করছি।

তিনি বলেন, "বাণিজ্য মেলা থেকে স্বদেশীরা যেমন দেশি অনেক পণ্য সম্পর্কে ধারণা পেতে পারেন, তেমনি বিদেশি ক্রেতারাও বাংলাদেশের পণ্য সম্পর্কে ধারণা নিতে পারে।"

এবারের বাণিজ্য মেলায় এ বছর রেস্তোরাঁসহ স্টল ও প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ধরা হয়েছে ৪৬১টি। এর মধ্যে রয়েছে স্পেশাল প্যাভেলিয়ন ৫টি, প্রিমিয়ার প্যাভেলিয়ন ৫টি, প্রিমিয়ার মিনি প্যাভেলিয়ন ৪টি, প্রিমিয়ার স্টল ৩৫টি, প্যাভেলিয়ন ৬০টি, মিনি প্যাভেলিয়ন ৪০টি, স্টল ৩০০টি এবং রেস্তোরাঁ ১২টি।

ইপিবির উপ-পরিচালক ও বাণিজ্য মেলা সচিবালয়ের সদস্য সচিব সৈয়দ বেলাল হোসেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, দরপত্রের মাধ্যমে প্যাভেলিয়ন ও স্টলগুলো বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

মেলায় ছুটির দিনে প্রায় দুই থেকে আড়াই লাখ এবং কর্মদিবসে প্রায় ১ লাখ মানুষ আসেন বলে আগের মেলার অভিজ্ঞতা থেকে তিনি জানান।

গতবছর বাণিজ্য মেলায় বাইরের আটটি দেশ অংশ নিয়েছিলো। এবার আরো ছয়টি দেশ যোগ হচ্ছে বলে জানান ইপিবির ভাইস চেয়ারম্যান।

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা প্রথম হয় ১৯৯৫ সালে।