ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

শনিবার গার্মেন্টে ধর্মঘটের ডাক Featured

Rate this item
(0 votes)

শুক্রবার তোবা গ্রুপ শ্রমিক সংগ্রাম কমিটির পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কর্মসূচি পালনের আহ্বান জানানো হয়েছে।

গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক কাজী রহুল আমিন স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, তোবা গ্রুপসহ দেশের সব গার্মেন্ট শ্রমিক-কর্মচারীদের বকেয়া পরিশোধ, তোবা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দোলোয়ার হোসেনের জামিন বাতিল করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি, শ্রমিকদের ছাঁটাই-নির্যাতন, হামলা-মামলা, দমননীতি বন্ধের দাবি এবং আন্দোলনরত নেতাদের গ্রেপ্তার এবং শ্রমিকদের ওপর হামলার প্রতিবাদে এ ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়েছে।

এর আগে ৫ অগাস্ট বাড্ডার হোসেন মার্কেটে তোবার কারখানায় অনশনরত অবস্থায় তোবা গ্রুপ শ্রমিক সংগ্রাম কমিটির সমন্বয়ক মোশরেফা মিশু শনিবার সারা দেশের শিল্পাঞ্চলে ধর্মঘটের কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলেন।

 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শনিবারের ধর্মঘট সফল করতে শুক্রবার বিকালে নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর, সিদ্ধিরগঞ্জ, চট্টগ্রাম, আশুলিয়া, সাভার, টঙ্গী, জয়দেবপুর, কোনাবাড়ী, মাওনা, মিরপুর, তেজগাঁওয়ে পথসভা ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

ওই সব মিছিল ও পথসভায় পুলিশ লাঠিপেটা করে এবং ব্যানার কেড়ে নেয়। এতে অনেক গার্মেন্ট নেতা-কর্মী, শ্রমিক আহত হয়েছেন।

 

মিছিল-সমাবেশ থেকে শনিবারের ধর্মঘট সফল করতে দেশের সব গার্মেন্ট কারখানার শ্রমিকদের আহ্বান জানানো হয়েছে।

 

এ বিষয়ে তোবা গ্রুপ শ্রমিক সংগ্রাম কমিটির সদস্য জলি তালুকদার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এই সংগ্রাম কমিটিতে ১৫টি শ্রমিক সংগঠন রয়েছে। এছাড়া দেশের অন্যান্য শ্রমিক সংগঠনও নায্য দাবিতে সব সময় সাড়া দিয়ে থাকে। আমরা আগামীকালের কর্মসূচি বাস্তবায়নে ঐক্যবদ্ধ।

 

ফাইল ছবি ফাইল ছবি “জানি পুলিশ বা মালিকপক্ষ বাধা দেবে, তা সত্ত্বেও শ্রমিকদের নায্য দাবিতে আমরা কর্মসূচি পালন করবো।”

তিন মাসের বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে ঈদের আগের দিন থেকে প্রায় দুই সপ্তাহ অনশনের পর তোবা গ্রুপের পাঁচ শ্রমিকদের আংশিক বকেয়া পরিশোধের ঘোষণা দেয় গার্মেন্ট মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ।

 

তাদের বেতন প্রত্যাখ্যান করে শ্রমিকদের একটি অংশ কর্মসূচি অব্যাহত রাখলে বৃহস্পতিবার তোবার কারখানা ভবনে ঢুকে লাঠিপেটা ও পিপার স্প্রে মেরে অনশনকারীদের সরিয়ে দেয় পুলিশ। এ সময় মোশরেফা মিশু ও জলি তালুকদারসহ কয়েকজনকে পুলিশ আটক করলেও রাতে ছেড়ে দেয়।