ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Thursday, 13 March 2014 22:53

লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়েছে চামড়াজাত পণ্যের রপ্তানি

Rate this item
(0 votes)

চলতি অর্থবছরের ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যের রপ্তানি, লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। চামড়া শিল্পের ব্যবসায়ীরা বলছেন, কোরবানি ঈদের আগে পুরনো মজুদ বিক্রি এবং রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যেও বিশেষ ব্যবস্থায় জুতা, ব্যাগের মত পণ্য রপ্তানি অব্যাহত রাখায় সামগ্রিকভাবে প্রবৃদ্ধি সন্তোষজনক আছে। দেশে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ থাকলে , বছর শেষেও চামড়াখাতের রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি হবে বলে আশা করছেন তারা।

গত অর্থবছরে ৪শ' মিলিয়ন ডলার বা প্রায় তিন হাজার ২শকোটি টাকার প্রক্রিয়াজাত চামড়া রপ্তানি করে বাংলাদেশ। আর এখাতে চলতি অর্থবছর প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ১৫ শতাংশ। তবে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, জুলাই-ফেব্রুয়ারি আট মাসে রপ্তানি গত অর্থ বছরের একই সময়ের তুলনায় ৪৪ শতাংশ এবং লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে প্রায় ১৪ শতাংশ বেড়েছে। তবে গত বছরের শেষ কয়েকমাসে রাজনৈতিক অস্থিরতায় ঝুঁকি নিয়ে যেমন পণ্য পরিবহন করতে হয়েছে,তেমনি অনেক বেশি পরিবহন খরচ গুণতে হয়েছে বলে জানালেন এক ট্যানারি মালিক।

লেয়কো লিমিটেডের এমডি হারুন অর রশিদ জানান, 'কোরবানির আগে বিক্রিটা একটু বাড়ে, সে বিক্রিটা বাড়ার কারণেই আমার মনে হয় প্রবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রনে আছে। এখন ব্যবসায়ীক অবস্থা বিদ্যমান থাকলে আমরা আশা করি ব্যবসায়ীক লক্ষমাত্রা অর্জন করতে পারব।'

চামড়ার মত একইভাবে সু, ব্যাগসহ বিভিন্ন চামড়াজাত পণ্যের রপ্তানিও গত অর্থ বছরের একই সময়ের তুলনায় ৫০ শতাংশের মত বেড়েছে। পোশাক খাতের পরই বিদেশী ক্রেতাদের চোখ এখন বাংলাদেশী চামড়া পণ্যের দিকে। এমনটাই জানান এক ব্যবসায়ি।

এবছর কোরবানি ঈদে প্রত্যাশা অনুযায়ি কাঁচা চামড়া সংগ্রহ করা গেছে বলে জানান চামড়াখাতের ব্যবসায়ীরা। তাদের মতে চামড়া শিল্প নগরীর কাজ দ্রুত শেষ করে ট্যানারীগুলো স্থানান্তর করতে পারলে আরো বাড়বে এ শিল্পের আকার।

Last modified on Friday, 14 March 2014 19:14