ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Friday, 03 October 2014 22:39

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে জাতি হতাশ- মির্জা ফখরুল

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য জাতি হতাশ ও ক্ষুব্ধ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর বক্তব্যের জন্য তিনি নিজেই দায়ী, সরকার নয়- প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্যে প্রসঙ্গে ফখরুল বলেন, লতিফ সিদ্দিকী এখনও মন্ত্রীর পদে আছেন। তাই এই দায় সরকার এড়িয়ে যেতে পারেন না।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত চতুরতার সঙ্গে লতিফ সিদ্দিকীর বিষয় এড়িয়ে গিয়েছেন বলে মন্তব্য করেন তিনি।

শুক্রবার রাতে চেয়ারপারসনের গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

 

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে অসত্য দাবি করে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, তার এই বক্তব্যের মধ্য অহঙ্কার ও জনগণের উপেক্ষা করার মনোভাব ফুঁটে উঠেছে। এবং শেখ হাসিনার বক্তব্যে লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে কোন কার্যকর পদক্ষেপের কথা শোনা যায়নি।

 

কার সঙ্গে আলোচনা করবো, খুনি ও দুর্নীতিবাজদের সাথে- প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্যের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, শেখ হাসিনার মুখে এধরনের বক্তব্যে শোভা প্রায় না। কারণ ২০০৯ সাল থেকে ২০১৪ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত বাংলাদেশে যে দুর্নীতি হয়েছে তা আর কখনো হয়নি।

 

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, কারা খুন করেছে? সেটা জনগণ জানে। কারণ ২০১৩ সালে মাত্র তিন মাসে বিএনপির ৩ শত ৬০ জন নেতাকর্মীকে খুন করা হয়েছে এবং ৬৫ জনকে গুম করা হয়েছে।

 

জনগণের দৃষ্টি ভিন্নখাতে প্রভাবিত করার জন্যই প্রধানমন্ত্রী এ ধরণের বক্তব্য রাখছেন বলে মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল।

 

আওয়ামী লীগের আমলে দেশে যে উন্নয়ন হয়েছে তা বিএনপির আমলে হয়নি- শেখ হাসিনার এই বক্তব্যে প্রসঙ্গে বিএনপির এই শীর্ষ নেতা বলেন, অর্থনৈতিক জরিপ প্রমাণ করবে কাদের আমলে দেশে বেশি উন্নয়ন হয়েছে।

 

সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, যতই বলেন বিএনপির সাথে সংলাপ নয়। কিন্তু বিএনপির সাথে আলোচনা ছাড়া আপনাদের সামনে আর কোন পথ নেই। তাই কালবিলম্ব না করে গণতন্ত্র ও দেশের স্বার্থে সংলাপের আয়োজন করুন। অন্যথায় আপনাদের সময় থাকবে না।

 

তিনি বলেন, দুর্নীতি মামলায় তারেক রহমানকে আদালত জামিন দেওয়ার পরও প্রধানমন্ত্রী এই মামালায় বিষয়ে বক্তব্যে দিয়েছেন। এই বক্তব্যে দিয়ে শেখ হাসিনা আদালত অবমাননা করেছেন।

 

ফখরুল অভিযোগ করেন, প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও খালেদা জিয়াকে নিয়ে বিদ্রুপ করেছেন। তিনি দলের পক্ষ থেকে এর তীব্র নিন্দা জানান।