ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Saturday, 20 September 2014 11:57

‘ভাঙন ঠেকাতে’ মহাসচিবদের বৈঠক আজ Featured

ঢাকা: ২০ দলীয় জোটের মহাসচিবদের জরুরি বৈঠক ডেকেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিভিন্ন মহল থেকে বিএনপির এই জোটে ভাঙনের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। এই গুঞ্জনের মধ্যেই বৈঠক ডাকা হলো।

শনিবার বিকেল ৪টায় নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই বৈঠক হবে।

বিএনপির সহদপ্তর সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম বাংলামেইলকে জানান, আজ বিকেলে জোটের মহাসচিবদের বৈঠক ডাকা হয়েছে।

 

জানা গেছে, ২৪ অগাস্ট ন্যাশনাল পিপপলস পার্টির চেয়ারম্যান শেখ শওকত হোসেন নীলুর নেতৃত্বে একটি অংশ জোট থেকে বেরিয়ে যায়। পরে নীলু নিজেকে এনপিপির একাংশের চেয়ারম্যান দাবি করে নতুন রাজনৈতিক জোটের ঘোষণা দিয়ে বলেছিলেন, তার নতুন জোটে আরো দল যোগ দেবে। তবে কোন কোন দল নিলুর নতুন জোটে যোগ দিচ্ছে এ বিষয়ে কোনো জবাব দেননি তিনি।

 

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির ভাঙন ধরেছে। এনডিপির মহাসচিব আলমগীর মজুমদারের নেতৃত্বে নতুন এনডিপি হচ্ছে। এনডিপির একাংশ নীলুর রাজনৈতিক জোটে যোগ দেবে।

 

এনডিপির মহাসচিব আলমগীর মজুমদার বেলা ১১টায় কাকরাইলের ঈশা খাঁ হোটেলে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন। রাজনৈতিক অঙ্গনে জোর গুজব, তিনি আজই জোট ছাড়ার ঘোষণা দিতে পারেন। সেই সঙ্গে লেবার পার্টি এবং মুসলিম লীগ ভেঙে দল দু’টির সেই অংশ শেখ শওকত হোসেন নীলুর নতুন রাজনৈতিক জোটে যোগদানের প্রক্রিয়ায় চলছে।

 

এছাড়াও ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক জামায়াতে ইসলামীকে নিয়ে সন্দেহ প্রবল হয়েছে। বিএনপি সমর্থকদের ধারণা, দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ‘আমৃত্যু কারাদণ্ড’র প্রতিবাদে জামায়াত যে হরতাল পালন করেছে তা সরকারের প্রেসক্রিপশনেই হয়েছে।

 

আরেক শরিক ইসলামিক পার্টির মহাসচিব এমএ রশীদ প্রধানের নেতৃত্বে আরেকটি অংশও জোট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পায়তারা করছে।

 

এর আগে ৫ জানুয়ারির ভোট সামনে বেরিয়ে যায় ন্যাপ-ভাসানী সভাপতি শেখ আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে একটি অংশ।

 

বিএনপি ও জামায়াত ছাড়া জোটের সদস্যরা হল: ইসলামী ঐক্যজোট, খেলাফত মজলিশ, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি), লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্র্টি (এলডিপি), কল্যাণ পার্টি, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা), ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি), ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এনডিপি), লেবার পার্টি, ইসলামিক পার্টি, বাংলাদেশ ন্যাপ, ন্যাপ ভাসানী,  মুসলিম লীগ, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম, পিপলস লীগ ও ডেমোক্রেটিক লীগ।

 

নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলন গড়ে তুলতে ২০১২ সালের ১৮ এপ্রিল এই জোট গড়ে উঠেছিল। তখন অবশ্য এ জোটে ১৮ দল ছিল। পরে কাজী জাফরের জাপা ও সাঈদ আহমেদের নেতৃত্বে সাম্যবাদী দল।