ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Wednesday, 24 September 2014 11:13

শিগগিরই মন্ত্রিসভায় উঠছে ,জামায়াত নিষিদ্ধে আইনের সংশোধনী চূড়ান্ত

ঢাকা, ২৩ সেপ্টেম্বর- বহুল আলোচিত স্বাধীনতাবিরোধী সংগঠন হিসেবে জামায়াতে ইসলামীর বিচার করতে প্রয়োজনীয় আইনের সংশোধন খসড়া শিগগিরই মন্ত্রিসভায় উঠছে। এরই মধ্যে আন্তর্জাতিক অপরাধ (ট্রাইব্যুনালস) আইন, ২০১৪ সংশোধনের জন্য খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিউইর্য়ক থেকে ফেরার পরে আগামী মাসে মন্ত্রিসভায় নীতিগত অনুমোদনের জন্য উত্থাপন করা হবে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

আইন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধে জড়িত সংগঠনকে নিষিদ্ধ ও ভবিষ্যৎ কার্যক্রমের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিধান রেখে আইসিটি আইন সংশোধনের খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। খসড়ায় বিদ্যমান আইনের ১০টি ধারায় সংশোধনের প্রস্তাব করা হয়েছে। এর মধ্যে সাতটি ধারায় কেবল 'ব্যক্তি' শব্দের পাশাপাশি 'সংগঠন' শব্দটি প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। জামায়াতের বিচার করতে আন্তর্জাতিক অপরাধ (ট্রাইব্যুনালস) আইনটি (আইসিটি) সংশোধনের কাজ আগস্টে শেষ হয়। যুদ্ধাপরাধের বিচারের লক্ষ্যে ১৯৭৩ সালে আন্তর্জাতিক অপরাধ (ট্রাইব্যুনালস) আইনের অধীনে ২০১০ সালে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার শুরু হয়। এর আগে ২০০৯ সালের ১৪ জুলাই আন্তর্জাতিক অপরাধ আইন, ২০০৯ প্রথম দফায় সংশোধন করা হয়। এর পর ২০১২ সালে দ্বিতীয় সংশোধনীতে আসামির অনুপস্থিতিতে তাকে পলাতক ঘোষণা করে বিচার এবং এক ট্রাইব্যুনাল থেকে অন্য ট্রাইব্যুনালে মামলা স্থানান্তরের বিধান যুক্ত করা হয়। ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে তৃতীয় দফায় আইনটিতে সংশোধন আনা হয়। বর্তমানে চতুর্থ দফায় আইন সংশোধনের কাজ চূড়ান্ত। একাত্তরে হত্যা, গণহত্যাসহ সাত ধরনের মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে স্বাধীনতার বিরোধিতাকারী দল জামায়াতে ইসলামীকে চিরতরে নিষিদ্ধ করতে তদন্ত সংস্থার পক্ষ থেকে প্রসিকিউশনে আবেদন করা হয়।