ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Thursday, 02 October 2014 14:32

‘অসুস্থ’ লতিফ সিদ্দিকীকে দল থেকেও বহিষ্কার করা হবে- প্রধানমন্ত্রী Featured

ধর্ম নিয়ে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী মর্মাহত। তাকে শুধু মন্ত্রিসভা নয়, দল থেকেও বহিষ্কার করা হবে। প্রধানমন্ত্রী ঢাকায় ফেরার পরই মন্ত্রিসভা থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

বৃহস্পতিবার সকালে ওসমানী বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে সিলেট আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এমন মনোভাব ব্যক্ত করেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘কোনো সুস্থ মানুষ ধর্মীয় অনুভূতিতে এ রকম আঘাত করতে পারে না। হজ ইসলামের একটি মৌলিক স্তম্ভ। আমি নিজেও বেশ কয়েকবার হজ-ওমরাহ পালন করেছি। এমনকি আমার দাদা-দাদির বদলি হজ করেছি। কাজেই আমার মন্ত্রিসভার এবং দলের কেউ হজ সম্পর্কে এরকম বক্তব্য দেবে এটা কোনোভাবেই সহ্য করা যায় না।’

 

যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে ১০ দিনের সফর শেষে প্রধানমন্ত্রী বৃস্পতিবার সকালে দেশে ফেরেন। ফেরার পথে তিনি সিলেট এমএজি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাত্রাবিরতি করেন। যুক্তরাজ্য থেকে

 

প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমান (বিজি-০০৬) সকাল নয়টায় ওসমানী বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

 

প্রধানমন্ত্রী বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে প্রায় একঘণ্টা অবস্থান করে সিলেট আওয়ামী লীগের পাঁচশীর্ষ নেতা ও মহিলা সংসদ সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন।

 

এ প্রসঙ্গে মিসবাহ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমাদের সঙ্গে চা-চক্র এবং সাংগঠনিক বিষয়াদি নিয়েও আলোচনা করেছেন। সকাল ১০টায়  প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমান ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

 

উল্লেখ্য, গত রোববার বিকেলে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের একটি হোটেলে নিউইয়র্কে বসবাসরত টাঙ্গাইলবাসীর সঙ্গে মতবিনিময় করেন লতিফ সিদ্দিকী।

 

এসময় তিনি বলেন, ‘আব্দুল্লাহর পুত্র মোহাম্মদ চিন্তা করলো এ জাজিরাতুল আরবের লোকেরা কীভাবে চলবে? তারাতো ছিল ডাকাত। তখন সে একটা ব্যবস্থা করলো যে আমার অনুসারীরা প্রতিবছর একবার একসঙ্গে মিলিত হবে। এর মধ্য দিয়ে একটা আয়-ইনকামের ব্যবস্থা হবে।’

 

তিনি বলেন, ‘আমি হজ আর তাবলিগ জামাতের ঘোরতর বিরোধী, জামায়াতে ইসলামিরও বিরোধী, তবে তার চেয়েও বেশি হজ ও তাবলিগ জামাতের।’

 

হজ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের এ প্রবীণ নেতা বলেন, ‘হজের জন্য ২০ লাখ লোক সৌদি আরবে গিয়েছে। এদের কোনো কাম নাই। এদের কোনো প্রডাকশন নাই। শুধু রিডাকশন দিচ্ছে। শুধু খাচ্ছে আর দেশের টাকা দিয়ে আসছে।’

 

এ সময় তাবলিগ জামাতের সমালোচনা করে মন্ত্রী বলেন, ‘তাবলিগ জামায়াত প্রতিবছর ২০ লাখ লোকের জমায়েত করে। নিজেদেরতো কোনো কাজ নেই। সারা দেশের গাড়িঘোড়া তারা বন্ধ করে দেয়।’

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে নিয়েও বিরূপ মন্তব্য করেন মন্ত্রী। এর পরই দেশে-বিদেশে ব্যাপক তোপের মুখে পড়েন তিনি। ইতিমধ্যে তাকে মন্ত্রিসভা থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।