ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Thursday, 27 February 2014 20:11

শিক্ষার্থীদের হাতে বন সৃজন

Rate this item
(0 votes)

লেখাপড়ার পাশাপাশি বন সৃজনের দায়িত্ব নিয়েছে কাপ্তাই উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এ জন্য পড়াশোনার ফাঁকে চলছে চারা লাগানো ও গাছের পরিচর্যার কাজ। কাপ্তাই পাল্পউড বাগান বিভাগের এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে শিক্ষক ও শিক্ষর্থীরা লাভবান হবেন, পাশাপাশি প্রকৃতি ও পরিবেশ বাঁচবে।


‘শ্রেণীকক্ষে পাঠদান শেষ হলে বিদ্যালয়সংলগ্ন মাঠে চলে যায় শিক্ষার্থীরা। সেখানে গাছের চারা রোপণ করা শিখছে ওরা। প্রত্যেকেই উপভোগ করছে কাজটাকে।’ বললেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মীর মোস্তাফিজুর রহমান।
তাঁর কাছ থেকে জানা গেল, ‘দারিদ্র্য বিমোচন’ প্রকল্পের অধীনে কাপ্তাই পাল্পউড বাগান বিভাগ উপজেলার একটি বিদ্যালয়কে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির আওতায় আনার উদ্যোগ নেয়। উদ্যোক্তারা বিভিন্ন বিদ্যালয় ঘুরে শেষ পর্যন্ত কাপ্তাই উচ্চবিদ্যালয়কে প্রকল্পভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেন। বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা এখন গাছ লাগানোর কাজে মেতে আছে। বিদ্যালয়ের মাঠে ফলদ, বনজ এবং ঔষধি গাছের চারা লাগাচ্ছেন তাঁরা।
পাল্পউড বাগান বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক মো. মোস্তাফিজুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, সড়কের পাশে অবস্থিত হওয়ায় এবং পর্যাপ্ত খালি জায়গা থাকায় আমরা বিদ্যালয়টিকে প্রকল্পের আওতায় এনেছি। প্রকল্প বাস্তবায়নে শিক্ষার্থীদের গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীরা নিজ হাতে গাছের চারা লাগাবে, গাছের পরিচর্যা করবে, গরু ছাগলের কবল থেকে গাছ রক্ষা করবে এবং চারাগুলো যাতে নির্বিঘ্নে বড় হতে পারে সেদিকে লক্ষ রাখবে। এটা করতে গিয়ে শিক্ষার্থীদের স্বাভাবিক লেখাপড়ায় যাতে বিঘ্ন না ঘটে সেটা শিক্ষকসহ বন বিভাগের লোকজন নিশ্চিত করবেন। তিনি আরও বলেন, বন বিভাগের তত্ত্বাবধানে শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে বিদ্যালয়ের আঙিনায় ৫০০ গাছের চারা লাগানো হয়েছে। প্রতিটি চারা একেকজন শিক্ষার্থী দেখাশোনা করবে।
বন বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা রফিকুল হোসেন বলেন, গাছ সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের ধারণা দিতে এবং গাছের প্রতি ভালোবাসা সৃষ্টি করতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কাজটি শিক্ষার্থীরা আগ্রহের সঙ্গে নিয়েছে। প্রতিদিন শিক্ষার্থীরা নিজেদের লাগানো গাছের চারার তদারকি করে। ভবিষ্যতে এই গাছের একটি অংশ বিদ্যালয় এবং সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীরা পাবে বলেও তিনি জানান।
প্রধান শিক্ষক মীর মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, শিক্ষার্থীরা অবসরে গাছের চারার দেখাশোনা করলেও আমরা সব শিক্ষক তাদের প্রতি বাড়তি নজর রাখছি। গাছের যত্ন নিতে গিয়ে যাতে কারও লেখাপড়ার ক্ষতি না হয় সে ব্যাপারে সব শিক্ষক সজাগ আছেন।

 

Last modified on Thursday, 06 March 2014 15:21