ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Thursday, 27 February 2014 17:04

'পরিবেশ আইনে সংশোধনী আনা হচ্ছে'

Rate this item
(0 votes)


বন ও পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন, পরিবেশ বিপর্যয়ের কথা মাথায় রেখে শিগগিরই পরিবেশ আইনে সংশোধনী আনা হচ্ছে। একইসঙ্গে পরিবেশ আদালত আইনও সংশোধন করা হবে।

ঢাকা, জুন ০৩ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- বন ও পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন, পরিবেশ বিপর্যয়ের কথা মাথায় রেখে শিগগিরই পরিবেশ আইনে সংশোধনী আনা হচ্ছে। একইসঙ্গে পরিবেশ আদালত আইনও সংশোধন করা হবে।

সংশোধিত আইনে, জাহাজ ভাঙ্গাসহ বিভিন্ন বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। এ ছাড়া বর্জ্য পরিশোধন প্ল্যান্ট স্থাপন ছাড়া কেউ শিল্প কারখানা চালাতে পারবে না বলে জানান বন ও পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান হাছান মাহমুদ। তিনি জানান, আগামী শনিবার (৫ জুন) বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও পালিত হবে বিশ্ব পরিবেশ দিবস। দিনটির এবারের প্রতিপাদ্য 'জীব বৈচিত্রপূর্ণ একটি পৃথিবীই আমাদের স্বপ্ন'।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে পরিবেশ দিবস ও পরিবেশ মেলার উদ্বোধন করবেন।

বিশ্ব পরিবেশ দিবসকে সামনে রেখে আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, জীব বৈচিত্র রক্ষায় গণসচেতনতা বাড়াতে জাতিসংঘ ২০১০ সালকে 'আন্তর্জাতিক জীব বৈচিত্র বর্ষ' ঘোষণা করেছে। ইতিমধ্যে এ বিষয়ে বাংলাদেশ একটি কর্মপরিকল্পনাও তৈরি করেছে বলে তিনি জানান।

হাছান মাহমুদ বলেন, "বর্তমান বাস্তবতায় জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়টিকে আমরা অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছি। ১২টি মন্ত্রণালয় জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে এক সঙ্গে কাজ করছে। এছাড়া পরিবেশ মন্ত্রণালয়ে নতুন করে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে একটি শাখা স্থাপণ করা হয়েছে।"

পরিবেশ রক্ষায় সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, "পরিবেশ দূষণের জন্য আমাদের আচরণও অনেকাংশে দায়ী।"

বিত্তশালীদের আচরণ পরিবর্তনে ঢাকা ও চট্টগ্রামের জন্য একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী। প্রকল্প অনুযায়ী, এখানকার অভিজাত এলাকার প্রতিটি পরিবারে তিনটি করে আবর্জনা ফেলার পাত্র সরবরাহ করা হবে। এসব পাত্রের একটিতে পরিশোধণ করে ব্যবহারযোগ্য বর্জ্য, একটিতে পঁচনশিল বর্জ্য ও আরেকটিতে কঠিন বর্জ্য ফেলা হবে। রাস্তার ধুলোবালি পরিস্কারের জন্য ভ্যাকুয়াম ক্লিনার ট্রাক নামানোর কথা জানান তিনি।

ট্যানারি শিল্প স্থানান্তরে দীর্ঘসূত্রিতা সম্পর্কে হাছান

মাহমুদ বলেন, "এই শিল্প স্থানান্তরে অতীতের কোন সরকারই তেমন জোরালো উদ্যোগ নেয়নি। ট্যানারি সরিয়ে নিতে এবার সরকারের পক্ষ থেকেই কেন্দ্রীয় বর্জ্য পরিশোধনাগার স্থাপণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।"

তিনি জানান, নদী দূষণ ঠেকাতে নদী তীরের মানুষকে সম্পৃক্ত করার চেষ্টা করছে সরকার। বিষাক্ত জাহাজ আমদানি রোধে ব্যবস্থা নেয়া প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, "সব শিল্পেরই ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক রয়েছে। জাহাজ ভাঙ্গা শিল্প বন্ধ করা আমাদের উদ্দেশ্য নয়। পরিবেশ দূষণ ঠেকাতে জাহাজ আনা এবং ভাঙ্গার ক্ষেত্রে নতুন আইন করতে যাচ্ছে সরকার।"

 

 

 

Last modified on Sunday, 09 March 2014 16:36