ঢাকা,শুক্রবার, ১৩ মার্চ ২০১৫, ২৯ ফাল্গুন ১৪২১, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৬

Friday, 13 March 2015 16:30

নাশকতার প্রতিবাদে ছাত্র ও শ্রমিক সমাজের মানববন্ধন Featured

হরতাল-অবরোধে নাশকতার প্রতিবাদে মন্ত্রীর নেতৃত্বে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ছাত্র ও শ্রমিক সমাজ। শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তারা এ কর্মসূচি পালন করেন।এসময় বক্তারা অভিযোগ করেন, গণতন্ত্র ধ্বংস করতেই বেগম জিয়া মানুষ হত্যায় মেতে উঠেছে। অবিলম্বে জনগণের কাছে ক্ষমা চেয়ে এ ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান বক্তারা।বেগম জিয়ার নেতৃত্বে ২০ দলীয় জোটের টানা অবরোধ আর হরতালে মানুষ পুড়িয়ে মারা আর জ্বালাও পোড়াও এর প্রতিবাদে এই মানববন্ধন আর প্রতিবাদ সমাবেশ।এসময়, নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান অভিযোগ করেন, সমগ্র দেশ আর গোটা বিশ্ব যখন এই নাশকতা আর সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তখনও ক্ষমতার লোভে বেগম জিয়া মানুষ হত্যায় লিপ্ত। অবিলম্বে এ ধরণের নাশকতা থেকে দেশবাসীকে মুক্তি না দিলে বেগম জিয়াকে ভয়াবহ পরিণতি বহন করতে হবে বলেও হুশিয়ারি দেন তিনি।শাজাহান খান আরও বলেন, 'বেগম জিয়া আজ খলনায়িকায় উপনীত হয়েছেন।

তিনি স্বেচ্ছায় বন্দি হয়ে বাংলার মানুষকে হত্যায় লিপ্ত হয়েছেন।'বিএনপি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্রে ব্যর্থ হয়ে গণতন্ত্র ধ্বংস করতেই তার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ ও হত্যার চেষ্টা করেছে বলে আলাদা এক মানববন্ধন থেকে অভিযোগ করেন ছাত্রলীগের বর্তমান ও সাবেক নেতৃবৃন্দ।বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ বলেন, 'পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ হত্যা করে বেগম জিয়া প্রমাণ করেছেন তিনি জঙ্গিবাদের মূলহোতা।'আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, 'বেগম জিয়াকে বাংলার ১৬ কোটি মানুষ কোনদিন ক্ষমা করবে না।'পাশাপাশি মানুষ হত্যার দায়ে বেগম জিয়া ও তারেক রহমানকে আইনের আওতায় আনারও দাবি জানান তারা।